kalerkantho

বুধবার। ১৯ জুন ২০১৯। ৫ আষাঢ় ১৪২৬। ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

সংসদে আলোচনা

বঙ্গবন্ধুর পুরো ভাষণ হৃদয় থেকে উচ্চারিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ শুধু বাংলাদেশের সম্পদ নয়, সারা বিশ্বের মূল্যবান সম্পদে পরিণত হয়েছে। তিনি বলেন, পৃথিবীর অনেক স্বীকৃত ভাষণ রয়েছে। সেগুলোর সবই হয় লিখিত কিংবা পূর্ব প্রস্তুতি ছিল। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর পুরো ভাষণ ছিল অলিখিত, হৃদয় থেকে উচ্চারিত।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে জাতীয় সংসদ অধিবেশনে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে এক অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ কর্তৃক উত্থাপিত অনির্ধারিত এই আলোচনায় ১১ সংসদ সদস্য অংশ নেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু জানতেন নির্বাচনে জিতলেও পাকিস্তানিরা বাঙালিদের হাতে ক্ষমতা দেবে না। সে জন্য সশস্ত্র যুদ্ধের মাধ্যমে দেশ স্বাধীনের প্রস্তুতি তাঁর দীর্ঘদিন থেকেই ছিল। যুদ্ধ বাধলে কোথায় ট্রেনিং হবে, অস্ত্র কোথায় থেকে আসবে, অর্থ কোথা থেকে আসবে—সব কিছুর প্রস্তুতিই তিনি আগে থেকেই রেখে গিয়েছিলেন।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পৃথিবীর এমন কোনো ভাষণ নেই, যেটি ৪৮টি বছর ধরে সমান আবেদন নিয়ে মানুষ শুনছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘সব আলোচিত ভাষণ নিয়ে যুক্তরাজ্যের এক গবেষক আড়াই বছর ধরে কাজ করেন। সেখানে মাত্র ৪৪টি শ্রেষ্ঠ ভাষণ স্থান পেয়েছে, যেগুলোর ৭ই মার্চের ভাষণটি অন্যতম।’

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু একটি মাত্র ভাষণে একটি ঐক্যবদ্ধ জাতি সৃষ্টি করেছেন, নিরস্ত্র জাতিকে সশস্ত্র জাতিতে পরিণত করেছিলেন, একটি স্বাধীন দেশ উপহার দিয়েছিলেন। ৭ই মার্চের ভাষণে স্বাধীনতা থেকে শুরু করে দেশ পুনর্গঠন—এমন কোনো কথা নেই, যা তিনি বলেননি। পাকিস্তান বঙ্গবন্ধুকে ফাঁদে ফেলতে চেয়েছিল, কিন্তু চতুরতার সঙ্গে ভাষণ দিয়ে উল্টো পাকিস্তানকেই ফাঁদে ফেলেছিলেন বঙ্গবন্ধু।’

মন্তব্য