kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

সাহসী সালমা দৌড়ে বরাবরই প্রথম হতেন

অমিতাভ অপু, দোহার-নবাবগঞ্জ (ঢাকা)   

৮ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাহসী সালমা দৌড়ে বরাবরই প্রথম হতেন

সম্প্রতি এক কিলোমিটার দৌড়ে ছিনতাইকারী পাকড়াও করে আলোচনায় এসেছেন সালমা খাতুন নামের এক নারী। তবে হঠাৎ করেই তিনি এ সক্ষমতা-সাহস প্রদর্শন করেননি, অর্জন করে নিয়েছেন। জানা গেল, ছাত্রজীবন, এমনকি পেশাগত প্রশিক্ষণ কোর্সগুলোতেও দৌড় প্রতিযোগিতায় বরাবরই প্রথম কিংবা ভালো ফল অর্জন করে আসছেন এই সাহসী ও শক্তিমান নারী। পেশায় সরকারের প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা সালমা খাতুন বর্তমানে ঢাকার দোহার উপজেলায় সহকারী কমিশনার (এসি ল্যান্ড) হিসেবে কর্মরত।

গত শনিবার বিকেলে ঘটে আলোচিত ঘটনাটি। রাজধানীর হাতিরঝিলে অন্তত এক কিলোমিটার রাস্তা দৌড়ে পথচারীদের সহায়তায় এক ছিনতাইকারী পাকড়াও করেন তিনি। আল আমিন (২৫) নামের এক ছিনতাইকারীকে হাতিরঝিল থানায় সোপর্দ করে মামলাও করেছেন সালমা খাতুন। এই নারী কর্মকর্তার সাহসিকতার গল্প ঘুরছে সামাজিক এখন যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও।

হাতিরঝিল থানার ওসি ফজলুল করিম জানান, ওই নারী (সালমা) নিজেই ধাওয়া করেছিলেন। পরে পাবলিক ছিনতাইকারী ধরতে তাঁকে সহায়তা করে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।

সালমা খাতুনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শনিবার বিকেলে রিকশায় করে হাতিরঝিল দিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি।  সেখানে যানজটে বসে থাকার মুহূর্তে তাঁর গলায় থাকা লকেটসহ সোনার চেইনটি ছিঁড়ে নিয়ে দৌড় দেয় এক ছিনতাইকারী। তিনি সাহস করে তাকে ধাওয়া করেছিলেন। শাড়ি পরা অবস্থায়ই ছুটতে ছুটতে অন্তত এক কিলোমিটার দৌড়ে অন্যদের সহযোগিতায় ছিনতাইকারীকে ধরে ফেলেন। উদ্ধার করেন তাঁর চেইনটি। তবে ছিনতাইয়ের সময় লকেটসহ চেইনটি টুকরো হয়ে যাওয়ায় চেইনের পুরো অংশটি উদ্ধার করতে পারেননি তিনি। পরে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে সাহায্য নেন পুলিশের। ছিনতাইকারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়ে তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন সালমা। তবে শুধু এটাই নয়, তাঁর জীবনে সাহসিকতার আরো গল্প রয়েছে।

মন্তব্য