kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সংসদে স্বাস্থ্যমন্ত্রী

গত বছর দেশে ক্যান্সারে আক্রান্ত দেড় লাখ, মৃত্যু ১ লাখ ৮ হাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক সংসদে জানিয়েছেন, বিগত ২০১৮ সালে দেশে এক লাখ ৫০ হাজার ৭৮১ জন ক্যান্সার রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে এক লাখ আট হাজার ১১৩ জন মৃত্যুবরণ করেছে। গতকাল রবিবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি এ তথ্য জানান। সরকারি দলের সংসদ সদস্য এম আবদুল লতিফের লিখিত প্রশ্নের জবাবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইন্টারন্যাশনাল এজেন্সি ফর রিসার্স অন ক্যান্সারের (আইএআরপি) বরাত দিয়ে মন্ত্রী এ তথ্য জানান। তিনি আরো জানান, তামাক, দূষণ, অনিরাপদ খাদ্যাভ্যাসের কারণে ক্যান্সার রোগীর সংখ্যা বাড়লেও গ্লোবাল অ্যাডালট টোব্যাকো সার্ভে (জিএটিএস) ২০০৯ এবং জিএটিএস ২০১৭-এর তুলনামূলক তথ্যচিত্রে দেখা যায়, তামাক কম ব্যবহারের কারণে ক্যান্সার রোগী ক্রমে হ্রাস পাচ্ছে। (জিএটিএস) ২০০৯-এ তামাক ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল ৪৩.৩ শতাংশ, যা জিএটিএস, ২০১৭-এ ৩৫.৩ শতাংশে নেমে এসেছে। তামাকের বিষয়ে সরকারের গৃহীত আইন প্রণয়ন ও বিভিন্ন জনসচেতনামূলক কার্যক্রম তুলে ধরেন তিনি। জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য পনির উদ্দিন আহম্মেদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, উপজেলা পর্যায়ে ডাক্তার, নার্স পদায়নের নিমিত্ত নতুনভাবে ডাক্তার নিয়োগ দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। নতুন করে ১০ হাজার ডাক্তার নিয়োগ দেওয়া হবে। এর মধ্যে পাঁচ হাজারের কার্যক্রম চলমান। অতি দ্রুতই এটা বাস্তবায়ন হবে। আওয়ামী লীগের সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সারা দেশের গ্রামাঞ্চলে পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি গ্রহণকারী মানুষের সংখ্যা বেড়েছে। স্বাধীনতা-উত্তরকালে পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি ব্যবহারকারীর হার ছিল মাত্র ৭.৭ শতাংশ। ২০০৯ সালে এ সংখ্যা ছিল ৫৫.৮ শতাংশ এবং বর্তমানে তা ৬২.০২ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। সরকারি দলের সদস্য মোহাম্মদ শহিদ ইসলামের প্রশ্নের জবাবে জাহিদ মালেক বলেন, সারা দেশের সব উপজেলা হাসপাতালে গাড়ি প্রদানের পরিকল্পনা রয়েছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৯৮টি গাড়ি ক্রয় ও সরবরাহ করা হয়েছে। এ ছাড়া ২০১৮-১৯ অর্থবছরে আরো ২৯৫টি গাড়ি ক্রয় প্রক্রিয়াধীন। ক্রয় সাপেক্ষে চাহিদার ভিত্তিতে উপজেলা হাসপাতালে গাড়ি প্রদান করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা