kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ফুলবাড়িয়ায় অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

ফুলবাড়িয়া (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফুলবাড়িয়ায় যৌতুক না পেয়ে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস শিমু আক্তারকে (১৫) পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে। শিমু ধামর বেলতলী গ্রামের সিরাজুল ইসলামের মেয়ে এবং বেলতলী উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। গতকাল মঙ্গলবার ভোরে স্বামীর বাড়িতে তাঁকে যৌতুকের জন্য পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে শিমুর চাচা মজিবুর রহমান জানান। গতকাল সন্ধ্যায় শিমুর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

এলাকাবাসী ও শিমুর পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিয়ের কয়েক মাস পর থেকে যৌতুকের জন্য মারধর করা হয় শিমুকে। দেড় মাস আগে শ্বশুরবাড়ি থেকে এলইডি টিভি আনার জন্য স্ত্রী শিমুকে চাপ দেয় তাঁর স্বামী শামীম আহাম্মেদ ও শ্বশুর-শাশুড়ি। গত সোমবার রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। শামীমের ভাই আবু সাইদ বলেন, ‘গতকাল সকালে ঘরের বারান্দায় অজ্ঞান অবস্থায় ভাবির (শিমু) মাথায় পানি দিতে দেখি, জ্ঞান না ফিরলে হাসপাতালে নেওয়ার পথে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মারা যান। যতুটুকু শুনেছি ভাবির পেটের ব্যথা ছিল।’

শিমুর বাবা সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘কয়েক দিন আগে এলইডি টিভি দাবি করে জামাই, দরিদ্র হওয়ার জামাইয়ের চাহিদা পূরণ করতে না পারায় বিভিন্ন সময় শিমুর ওপর শারীরিক নির্যাতন করত। যৌতুকের জন্য আমার মেয়েকে গতকাল স্বামী ও তার পরিববারের লোকজন পিটিয়ে হত্যা করেছে।’

ফুলবাড়িয়া থানার ওসি শেখ কবিরুল ইসলাম বলেন, সন্ধ্যার পর গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা