kalerkantho

বুধবার । ১৬ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৬ সফর ১৪৪১       

বুড়িগঙ্গাতীর উদ্ধার অভিযান

উচ্ছেদ আরো ১২০ স্থাপনা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উচ্ছেদ আরো ১২০ স্থাপনা

রাজধানীর বসিলায় বুড়িগঙ্গা নদীর পারে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে গতকাল অভিযান চালায় বিআইডাব্লিউটিএ। ছবি : কালের কণ্ঠ

বুড়িগঙ্গা নদীর দুই পার দখলমুক্ত করার চতুর্থ ধাপের প্রথম দিনে গতকাল সোমবার আরো ১২০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডাব্লিউটিএ)। এই নিয়ে চলমান এ অভিযানে এক হাজার ৫২০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হলো।

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে ও বিআইডাব্লিউটিএ সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সকাল ৯টার দিকে মোহাম্মদপুর বসিলা ব্রিজসংলগ্ন এলাকা থেকে বিআইডাব্লিউটিএর ঢাকা নদীবন্দরের যুগ্ম পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দিনের নেতৃত্বে এ উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়। আগের মতোই গতকালও উচ্ছেদ অভিযানের নেতৃত্ব দেন বিআইডাব্লিউটিএর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমান। বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলা এ অভিযানের সময় বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় ৬২টি পাকা ভবন, ৩৩টি আধাপাকা ও ২৫টি টিনশেড ঘর। 

তবে উচ্ছেদ অভিযানের সময় ভুক্তভোগীরা বাধা দেওয়ার চেষ্টা চলায়। তখন পুলিশের উপস্থিতিতে পরিস্থিতি শান্ত হয়। দখলদাররা দাবি করে, তাদের কাগজপত্র ঠিক আছে। কিছু দরিদ্র লোক দাবি করে, তাদের জন্য বিকল্প ব্যবস্থা করা হোক; তা না হলে তাদেরকে খোলা আকাশের নিচে থাকতে হবে।

এ উচ্ছেদ অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের অনেকেই বলে, নদী দখলমুক্ত করতে এ উচ্ছেদ অভিযানকে তারা সমর্থন করে। নদী বাঁচাতে হলে উচ্ছেদের বিকল্প নেই।

অভিযান প্রসঙ্গে বিআইডাব্লিউটিএর ঢাকা নদীবন্দরের যুগ্ম পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দিন বলেন, চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে। পর্যায়ক্রমে নদীর দুই পারের সব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা