kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বেতনের টাকা তুলে না দেওয়ার জের

শ্রীপুরে ঘুমন্ত স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, গাজীপুর   

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গাজীপুরের শ্রীপুরে বেতনের টাকা না দেওয়ায় পোশাক শ্রমিক স্ত্রীকে কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। আগুনে ঝলসে দেওয়ার প্রায় ১৪ ঘণ্টা পর গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় শিউলি আকতারের (৩৮)। শ্রীপুর থানার ওসি জাবেদুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

গত সোমবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে উপজেলার মুলাইদ মাজম আলী মোড় এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। আগুন দেওয়ার পর বাঁচার চেষ্টাকালে ধস্তাধস্তিতে শিউলির স্বামী শাহিদ হাওলাদারও (৪৫) দগ্ধ হয়। পুলিশি হেফাজতে ঢামেক হাসপাতালে বার্ন ইউনিটে চিকিৎসা চলছে তার। নিহত শিউলি আকতার ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার ডাকাতিয়া গ্রামের শুক্কুর আলীর মেয়ে। শ্রীপুরের মুলাইদ এলাকার আবদুর রশিদের বাড়ির একটি কক্ষে ভাড়ায় থেকে তিনি পাশের টেপিরবাড়ী (ছাতিরবাজার) ডিবিএল কারখানায় চাকরি করতেন। শাহিদ হাওলাদার বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার আবদুল মোতালেবের ছেলে। সে পেশায় পরিবহন শ্রমিক।

শিউলির ভাবি ও পাশের কক্ষের ভাড়াটিয়া সোহেনা আকতার জানান, শাহিদের সঙ্গে শিউলির বিয়ে হয় ১৪ বছর আগে। শাহিদের আরো এক স্ত্রী রয়েছে। শাহিদ ওই স্ত্রী নিয়ে অন্য জায়গায় থাকে। শিউলিকে ভরণ-পোষণ দিত না শাহিদ। বরং মাঝেমধ্যে এসে শিউলির বেতনের টাকা নিয়ে যেত। টাকা দিতে না চাইলে মারধর করত। কয়েক দিন আগে শিউলির কাছে গিয়ে টাকা চায় শাহিদ। বেতন পাননি বলে টাকা দিতে না পারায় শিউলিকে মাধর করে সে। সোমবার গিয়ে ফের টাকা চায়। টাকা দিতে না চাওয়ায় তুমুল ঝগড়া হয় তাদের। রাত ১২টার দিকে শিউলি ঘুমিয়ে পড়লে শাহিদ বাড়ির প্রতিটি কক্ষে বাইরে থেকে সিটকিনি লাগিয়ে দেয়। এরপর শিউলির কক্ষে ঢুকে ভেতর থেকে আটকে দেয় এবং ঘুমন্ত শিউলির শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয় শাহিদ। শিউলির চিৎকারে টের পেলেও দরজা বাইরে থেকে আটকানো থাকায় পাশের কক্ষগুলো থেকে তাত্ক্ষণিক কেউ বের হতে পারেনি। পরে পাশের বাড়ির লোকজন ছুটে গিয়ে দরজা ভেঙে শিউলিকে উদ্ধার করে। ততক্ষণে শিউলির শরীরের বেশির ভাগই পুড়ে যায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা