kalerkantho

বুধবার । ১৬ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৬ সফর ১৪৪১       

অ্যামনেস্টির দাবি

মিয়ানমার বাহিনী ফের মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রোহিঙ্গাদের গণহত্যা করার পর মিয়ানমার বাহিনী রাখাইনে আবারও মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল গতকাল দাবি করেছে, ‘আরাকান আর্মি’ দমনের নামে মিয়ানমার বাহিনী সেখানে বেসামরিক লোকজনের বাড়িঘরে কামানের হাজার হাজার গোলা ছুড়ছে।

সংস্থাটি জানায়, মিয়ানমার বাহিনী লোকজনকে খাদ্য ও মানবিক সহযোগিতা নিতে বাধা দিচ্ছে। সংঘাতে এরই মধ্যে বাস্তুচ্যুত হয়েছে কয়েক হাজার মানুষ।

মিয়ানমার বাহিনী নতুন করে গণহত্যা শুরুর পর সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। গত সপ্তাহে মিয়ানমার থেকে বৌদ্ধরাও আসতে শুরু করলে সীমান্ত বন্ধ করে দেয় বাংলাদেশ। অ্যামনেস্টি এক বিবৃতিতে বলেছে, বেসামরিক লোকজনকে আটক করতে মিয়ানমার বাহিনী ‘নিবর্তনমূলক আইন’ প্রয়োগ করছে বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে।

অ্যামনেস্টির ‘সংকট মোকাবেলা’ (ক্রাইসিস রেসপন্স) বিভাগের পরিচালক তিরানা হাসান বলেন, ‘সাম্প্রতিক এসব অভিযান আবারও স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে যে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী মানবাধিকার মানে না।’ তিনি বলেন, ‘গ্রামগুলোতে কামানের গোলা নিক্ষেপ এবং খাদ্য সরবরাহ আটকে দেওয়া কোনো অবস্থাতেই যৌক্তিক হতে পারে না।’ তিরানা হাসান বলেন, ‘আমরা দেখছি, লোকজনকে ক্রসফায়ার থেকে সুরক্ষা করা নয়; আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দৃষ্টি থেকে নিজেদের নিপীড়ন লুকানোই মিয়ানমার বাহিনীর কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা