kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মুরগি চুরির অপবাদে কিশোরকে নির্যাতন

ঘটনা অনুসন্ধানে হাইকোর্টের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুরগি চুরির অপবাদে চরফ্যাশনের হাজারীগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে রুবেল (১৪) নামের এক কিশোরকে স্থানীয় ইউপি সদস্য আমজাদের নেতৃত্বে নির্যাতনের ঘটনা অনুসন্ধান করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সংশ্লিষ্ট থানার ওসিকে এক সপ্তাহের মধ্যে এই তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে।

বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে গতকাল সোমবার এ আদেশ দেন। রুবেলকে নির্যাতনের ঘটনায় ‘মানুষ এত নিষ্ঠুর হয়!’ শিরোনামে গতকাল পত্রিকায় একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে আদালত এ আদেশ দেন। প্রতিবেদনটি আদালতের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অমিত দাসগুপ্ত। এ সময় রাষ্ট্রপক্ষে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে ভুক্তভোগী রুবেলের মা বিলকিছ বেগমকে উদ্ধৃৃত করে বলা হয়, ‘রুবেল জেলে নৌকার বাবুর্চি। ঘটনার আগের দিন বনভোজন খাওয়ার জন্য রুবেলসহ কয়েকজন মুরগি কিনে আনে। এই মুরগি চুরি করে আনা হয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন স্থানীয় মেম্বার। ১৫ নভেম্বর ঘটনার দিন স্থানীয় মেম্বার বাড়ি থেকে রুবেলকে ডেকে নিয়ে ৭ নম্বর ওয়ার্ডের হাজারীগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে গ্রামবাসীর সামনে মধ্যযুগীয় কায়দায় মারধর করেন। রুবেলকে বাঁ পায়ের সাথে ডান হাত এবং ডান পায়ের সাথে বাঁ হাত বেঁধে বদ্ধ হাত-পায়ের মাঝখানে মোটা লাকড়ি ঢুকিয়ে পেটানো হয়।’

পত্রিকার প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, ‘গত ১৫ নভেম্বর নির্মম এই ঘটনা ঘটলেও নির্যাতনকারীদের হুমকি আর আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে ভুক্তভোগীর পরিবার মামলা করতে পারেনি। নির্যাতনের নির্মম দৃশ্য ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ায় ঘটনার দুই মাসের বেশি সময় পর পুলিশ ভুক্তভোগীর মাকে ডেকে নিয়ে নির্যাতনকারী হাজারীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার আমজাদ হোসেনসহ ৬ জনকে আসামি করে গত শনিবার শশীভূষণ থানায় মামলা দায়ের করা হয়।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা