kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নারায়ণগঞ্জে জামাতার ছুরিকাঘাতে শ্বশুর খুন

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

২২ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় পারিবারিক কলহের জেরে মেয়েজামাইয়ের ছুরিকাঘাতে শ্বশুর ওয়াহাব মিয়া (৫০) নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় জামাতা আলমগীর হোসেনকে (৩২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গতকাল সোমবার রাতে ফতুল্লার আলীগঞ্জ মধ্যপাড়া এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ। নিহত ওয়াহাব মিয়া আলীগঞ্জ মধ্যপাড়ার মৃত কাদির মিয়ার ছেলে। আটক আলমগীর হোসেন দাপা উকিলবাড়ি মোড় এলাকার আব্দুস সাত্তারের ছেলে।

ওয়াহাব মিয়ার মেয়ে শাহনাজ আক্তার জানান, কয়েক মাস আগে পারিবারিকভাবে আলমগীর হোসেনের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। বিয়ের তিন-চার দিন পর থেকে মাদক সেবন করে ঘরে ফিরে যৌতুকের দাবিতে তাঁকে নির্যাতন করতেন আলমগীর। নির্যাতন সইতে না পেরে তিনি আলীগঞ্জে বাবার বাড়িতে চলে আসেন। এ ছাড়া নির্যাতনের অভিযোগে দুই মাস আগে বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ আদালতে আলমগীর হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় গতকাল বিকেলে আলমগীর হোসেনের বাবা আব্দুস সাত্তারকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। এ কারণে ক্ষোভে আলমগীর শাহনাজকে মারধর করতে চেষ্টা করেন। ওই সময় তাঁর বাবা বাধা দিলে তাঁকে মারধর করেন। একপর্যায়ে ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করেন। ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুর কাদের বলেন, জামাতা আলমগীর হোসেনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (এসআই) ছালেকুজ্জামান জানান, ওয়াহাব মিয়াকে আলমগীর মারধর করেন এবং ছুরি দিয়ে আঘাত করেন। স্থানীয় লোকজন ওয়াহাব মিয়াকে উদ্ধার করে শহরের ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। এলাকাবাসী আলমগীর হোসেনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা