kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

শেরপুরে ৩৩৫ কোটি টাকার সড়ক সম্প্রসারণ

অনিয়মের অভিযোগ এনে কাজ বন্ধ করে দিল স্থানীয়রা

শেরপুর প্রতিনিধি   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শেরপুর থেকে জামালপুরের বকশীগঞ্জ হয়ে ধানুয়া-কামালপুর পর্যন্ত ৫৮ কিলোমিটার সড়ক প্রশস্তকরণ কাজে ব্যাপক অনিয়ম ও নিম্নমানের কাজের অভিযোগ উঠেছে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ ৩৩৫ কোটি টাকা ব্যয়ে এটি বাস্তবায়ন করছে। ইতিমধ্যে ওই সড়কের শেরপুরের নন্দিরবাজার জিরো পয়েন্ট থেকে চরমুচারিয়া হয়ে ১৫ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণে হরিলুটের অভিযোগ তুলে স্থানীয় চরমুচারিয়া এলাকাবাসী কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। সড়কটি যথাযথভাবে সম্প্রসারণ ও অনিয়মের প্রতিকার দাবি করে মানববন্ধনও করেছে তারা।

এলাকাবাসীর দাবি, নিম্নমানের কাজের চিত্র সড়কজুড়ে। এলাকাবাসী সড়ক প্রশস্তকরণ কাজের মানের দিকে সরকারি নজরদারি বৃদ্ধি এবং কোটি কোটি টাকা অনিয়মের বিষয়ে তদন্ত কমিটি করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে।

এদিকে অনিয়মের অভিযোগ তোলা এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে উল্টো চাঁদাবাজির অভিযোগ তুলেছে ঠিকাদারের লোকজন। আর কাজ বন্ধ করে দেওয়ায় ঠিকাদারের পক্ষ থেকে পুলিশের কাছে চরমুচারিয়া এলাকার শতাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ করা হয়েছে।

স্থানীয় চরমুচারিয়া এলাকার বাসিন্দা জুলহাস উদ্দিন, মঞ্জুরুল হক, আব্দুর রাজ্জাক ও শরাফত আলী অভিযোগ করে বলেন, ‘আমরা ঠিকাদারের লোকজনকে নিয়ম মেনে ভালোভাবে কাজ করতে বলেছি। অথচ তারা আমাদের উল্টো হুমকি দেয় এবং কর্মরত স্থানীয় শ্রমিকদের মজুরি বন্ধ করে দেয়। এলাকার লোকজন এসবের প্রতিবাদে কাজ বন্ধ করে দিলে উল্টো ঠিকাদারের লোকজন এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে চাঁদাবাজির অভিযোগ দেয়।’

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এম এম বিল্ডার্সের দায়িত্বরত ব্যবস্থাপক মো. সালাহ উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, মূলত কাজের সাব-কন্ট্রাক্ট নিয়ে ঝামেলা হয়েছে, কাজের মান নিয়ে নয়। কাজে বাধা দেওয়ায় এলাকাবাসীকে এম এম বিল্ডার্সের সাব-কন্ট্রাক্টর রিপন পিস্তল দেখিয়ে শাসিয়েছেন বলে অভিযোগ করে এলাকার সাধারণ মানুষ। তবে রিপন এসব অভিযোগ অস্বীকার করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা