kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

দশ ট্রাক অস্ত্র মামলা

শুনানির জন্য হাইকোর্টের নতুন বেঞ্চ গঠন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চাঞ্চল্যকর দশ ট্রাক অস্ত্র চোরাচালান মামলায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুত্ফুজ্জামান বাবরসহ মৃত্যুদণ্ড পাওয়া ১৩ আসামির ডেথ রেফারেন্স ও কারাবন্দি আসামিদের করা আপিলের শুনানির জন্য হাইকোর্টের নতুন বেঞ্চ গঠন করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি এ এস এম আবদুল মবিনের হাইকোর্ট বেঞ্চকে এ দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি ভবানী প্রসাদ সিংহ ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার হাইকোর্ট বেঞ্চ গত ৮ জানুয়ারি মামলাটির শুনানি গ্রহণে অপারগতা প্রকাশ করায় নতুন বেঞ্চ গঠন করা হয়েছে।

২০১৪ সালের ৩০ জানুয়ারি চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ (বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১) আদালত বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় (অস্ত্র চোরাচালান মামলা হিসেবে পরিচিত) জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির ও সাবেক শিল্পমন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামী, বাবরসহ ১৪ জনকে মৃত্যুদণ্ড ও অস্ত্র মামলায় একই আসামিদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। এর কয়েক দিন পর ওই বছরের ৬ ফেব্রুয়ারি এ রায় অনুমোদনের জন্য (যা ডেথ রেফারেন্স হিসেবে পরিচিত) হাইকোর্টে পাঠানো হয়। এ ছাড়া কারাবন্দি আসামিরা আপিল করেন। এরপর হাইকোর্টে শুনানির জন্য পেপার বুক তৈরির পর শুনানির জন্য গত বছর ২২ মার্চ হাইকোর্টের বেঞ্চ নির্ধারণ করা হয়।

মৃত্যুদণ্ড পাওয়া আসামিরা হলেন মতিউর রহমান নিজামী, লুত্ফুজ্জামান বাবর, প্রতিরক্ষা গোয়েন্দা মহাপরিদপ্তরের (ডিজিএফআই) সাবেক পরিচালক মেজর জেনারেল (অব.) রেজ্জাকুল হায়দার চৌধুরী, এনএসআইয়ের সাবেক মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আবদুর রহিম, সাবেক পরিচালক উইং কমান্ডার (অব.) শাহাবুদ্দিন আহমদ, সাবেক উপপরিচালক মেজর (অব.) লিয়াকত হোসেন, সাবেক মাঠ কর্মকর্তা আকবর হোসেন খান, সিইউএফএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহসিন উদ্দিন তালুকদার ও মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) এনামুল হক, সাবেক ভারপ্রাপ্ত শিল্পসচিব নূরুল আমিন, ভারতীয় বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন উলফার সামরিক শাখার প্রধান পরেশ বড়ুয়া, স্থানীয় চোরাকারবারি হাফিজুর রহমান, অস্ত্র খালাসের জন্য শ্রমিক সরবরাহকারী দীন মোহাম্মদ এবং অস্ত্র বহনকারী ট্রলারের মালিক হাজি আবদুস সোবহান। এদের মধ্যে পরেশ বড়ুয়া ও নূরুল আমিন পলাতক। আর মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় নিজামীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়ায় মামলায় বর্তমানে আসামির সংখ্যা ১৩।

২০০৪ সালের ১ এপ্রিল রাতে চট্টগ্রামের সিইউএফএলের জেটি ঘাট থেকে দশ ট্রাক অস্ত্র ও গোলাবারুদ আটকের ঘটনায় কর্ণফুলী থানায় অস্ত্র আইন ও ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে পৃথক দুটি মামলা হয়, যা বহুল আলোচিত দশ ট্রাক অস্ত্র মামলা নামে পরিচিত।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা