kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৭ রবিউস সানি ১৪৪১     

চাকসু নির্বাচনের দাবিতে ছাত্রলীগের আলটিমেটাম

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৫ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্রসংসদ (চাকসু) নির্বাচনের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে এক মাসের আলটিমেটাম দিয়েছে ছাত্রলীগ। এ সময়ের মধ্যে ভোটার তালিকা প্রস্তুত ও নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা না করলে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। গতকাল সোমবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বুদ্ধিজীবী চত্বরে চাকসু নির্বাচনের দাবিতে মানববন্ধন করে ছাত্রলীগ এ আলটিমেটাম দেয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ২৮ বছর ধরে চাকসু নির্বাচন না হওয়ার কারণে ক্ষুণ্ন হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের গণতান্ত্রিক পরিবেশ। আবাসিক হলগুলোতে খাবারের নিম্নমান, শাটল ট্রেনে বগিসংকটসহ রয়েছে আরো অনেক সমস্যা। কিন্তু ছাত্ররা তাদের কোনো প্রতিনিধি না থাকায় দাবিদাওয়ার কথা কর্তৃপক্ষকে বলতে পারে না। এ ছাড়া ছাত্রসংসদের কার্যক্রম ও নির্বাচন না থাকার ফলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ছাত্রদের কোনো মতামত ছাড়াই অনৈতিক সিদ্ধান্ত পাস করে ফেলে। তাই অতি দ্রুত ছাত্রসংসদ নির্বাচন হওয়া জরুরি।

প্রায় তিন দশক ছাত্রসংসদ নির্বাচন না হওয়ার দায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এড়াতে পারে না উল্লেখ করে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বি সুজন বলেন, ‘প্রশাসনের অশুভ উদ্দেশ্যের কারণে এ নির্বাচন দেওয়া হয় না। কিন্তু এভাবে আর চলতে পারে না। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে এক মাস সময় দিচ্ছি এ সময়ের মধ্যে ভোটার তালিকা প্রস্তুত, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে একটি নির্বাচনের পথ তৈরি করার জন্য। অন্যথায় আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে কঠোর আন্দোলনে যেতে বাধ্য হব।’

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক অর্থ সম্পাদক জাহিদুল আওয়ালের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরো বক্তব্য দেন সাবেক সহসম্পাদক আজাদুর রহমান আজাদ, ছাত্রলীগকর্মী তারেকুল ইসলাম, নাসির উদ্দিন মিশু প্রমুখ।

১৯৬৬ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর ৫৩ বছরে চাকসু নির্বাচন হয়েছে মাত্র ছয়বার। সর্বশেষ নির্বাচন হয় ১৯৯০ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি। নির্বাচনে তৎকালীন ছাত্রদল নেতা নাজিম উদ্দিন (ভিপি), আজিম উদ্দিন (জিএস) ও মাহবুবুর রহমান শামিম (এজিএস) নির্বাচিত হন। ওই কমিটির সদস্যসংখ্যা ছিল ২৭। কিন্তু নির্বাচনে হেরে যাওয়াকে কেন্দ্র করে একই বছরের ডিসেম্বরে ছাত্রশিবির ক্যাডারদের হাতে ছাত্র ঐক্য নেতা ফারুকুজ্জামান খুন হওয়ার পর তৎকালীন প্রশাসন তাত্ক্ষণিকভাবে চাকসুর সব কার্যক্রম স্থগিত করে দেয়। ফলে বন্ধ হয়ে যায় চাকসুর হল সংসদের কার্যক্রম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা