kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৪ রবিউস সানি     

বিশ্ব প্রতিবন্ধী দিবস আজ

গণপরিবহনে উপেক্ষিত প্রতিবন্ধীদের অধিকার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজধানীসহ সারা দেশের যানবাহনে প্রতিবন্ধীদের জন্য সংরক্ষিত আসন নির্দিষ্ট করাই থাকে। কিন্তু প্রতিবন্ধীদের আসনগুলো দখল করে অন্য যাত্রীরা চলাচল করছে। প্রতিবন্ধীদের চলাচলের জন্য উপযোগী সড়ক অবকাঠামোও নেই। প্রশাসনের কেন্দ্রবিন্দু সচিবালয়ে প্রতিবন্ধীদের জন্য র্যাম্প থাকলেও তা অনেক সময় অন্যরাই ব্যবহার করে। আজ বিশ্ব প্রতিবন্ধী দিবস। দিবসটি ঘিরে বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে সরকারি-বেসরকারিভাবে। এসব কর্মসূচি থেকে নানা কথাবার্তা আসবে। কিন্তু ঢাকায় অবস্থানরত প্রতিবন্ধীরা বলছে, তাদের অধিকারের বাস্তবায়ন এখনো অনেক দূরে। এমনকি তাদের যে দৃষ্টিতে দেখা হয় তাও খুব দুঃখজনক।

গতকাল সুপ্রভাত, তুরাগ, ছালছাবিল, স্বদেশসহ ঢাকায় চলাচলকারী বেশ কিছু গণপরিবহনে উঠে দেখা গেছে, নারী ও প্রতিবন্ধীদের জন্য আসন সংরক্ষিত লেখা রয়েছে। কিন্তু তাতে অন্য যাত্রীরা বসে আছে।

আইনে গণপরিবহনে প্রতিবন্ধী যাত্রীর অধিকার রক্ষার নির্দেশ আছে। কিন্তু বাস মালিক, চালক ও তার সহকারীদের অধিকাংশই এই আইন সম্পর্কে জানেন না। গণপরিবহনে ওঠার সিঁড়িও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য উপযোগী নয়। হুইলচেয়ার গণপরিবহনে ওঠানোর জন্য যে র‌্যাম্প থাকার কথা কার্যত তা চোখে পড়ে না।

দেশের জনসংখ্যার ১০ শতাংশের বেশি মানুষ প্রতিবন্ধী। দেশের সংবিধানে তাদের সমান সুযোগের অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। এ অবস্থায় দেশে অন্তত সব বাস টার্মিনাল, স্থাপনা বা ভবন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য প্রবেশগম্য করা উচিত বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের চলাফেরা সহজ ও নিরাপদ করার জন্য সমান্তরাল ফুটপাত এবং ফুটপাতের শুরু ও শেষে (ইমারত বিধি আইন অনুযায়ী) ১২ ইঞ্চির জন্য এক ইঞ্চি অনুপাতে ঢাল রাখা উচিত বলে মনে করেন বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী। তিনি বলেন,  ঢাল এমনভাবে রাখতে হবে যেন হুইলচেয়ার ব্যবহারকারীরা ফুটপাত দিয়ে চলাচল করতে পারে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা