kalerkantho

শুক্রবার । ১৯ জুলাই ২০১৯। ৪ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৫ জিলকদ ১৪৪০

চিকিৎসা নিয়ে খালেদার রিটের আদেশ পেছাল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতাল থেকে কারাগারে পাঠানোর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে এবং হাসপাতালে চিকিৎসা অব্যাহত রাখার রিটের আদেশ আবারও পিছিয়ে আজ সোমবার ধার্য করা হয়েছে।

গতকাল রবিবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ আদেশের দিন পিছিয়ে এ নতুন দিন ধার্য করেন। গত বৃহস্পতিবার আদেশ দেওয়ার কথা থাকলেও খালেদা জিয়ার পক্ষে তাঁর আইনজীবীরা শুনানি করেন। অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী, জয়নুল আবেদীন ও ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন এবং সরকারপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেসুর রহমান শুনানি করেন। পরে গতকাল আদেশের দিন ধার্য করা হয়। কিন্তু আদালত গতকাল আদেশ না দিয়ে এক দিন পিছিয়ে দেন।

গত ১৩ নভেম্বর খালেদার রিটের প্রথম দফা শুনানি শেষে আদেশের জন্য গতকাল দিন ধার্য করেছিলেন আদালত। এর আগে গত ১১ নভেম্বর রিট আবেদন করা হয়। রিট আবেদনে খালেদা জিয়াকে বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা অব্যাহত রাখার দাবি জানানো হয়েছে। রিটে স্বরাষ্ট্রসচিব, কারা ও বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষসহ ৯ জনকে বিবাদী করা হয়।

খালেদা জিয়া জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে বর্তমানে কারাগারে। বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দিতে নির্দেশনা চেয়ে এর আগে খালেদা জিয়া রিট আবেদন করেন। গত ৪ অক্টোবর রিট নিষ্পত্তি করে কিছু নির্দেশনা ও পর্যবেক্ষণসহ আদেশ দেন হাইকোর্ট। আদেশের পর চিকিৎসার জন্য গত ৬ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউতে নেওয়া হয়। এর পর থেকে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত ৮ নভেম্বর বিএসএমএমইউ থেকে তাঁকে আবারও নাজিমুদ্দীন রোডের পুরনো কারাগারে ফিরিয়ে নেওয়া হয়। বর্তমানে তিনি সেখানেই কারাবন্দি।

মন্তব্য