kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ডিজিটাল আইনে প্রথম মামলায় পাঁচ আসামির স্বীকারোক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা প্রথম মামলায় পাঁচ আসামি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তাঁরা মেডিক্যালে ভর্তি পরীক্ষার ভুয়া প্রশ্নপত্র দিয়ে অনলাইনে প্রতারণা করেন বলে অভিযোগ ছিল। গতকাল তাঁদের ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম  আদালতে হাজির করা হলে আসামিরা ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। পরে তাঁদের কারাগারে পাঠানো হয়।

সূত্র জানায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি চক্র মেডিক্যালে ভর্তির প্রশ্ন একশ ভাগ কমনের নিশ্চয়তা দিয়ে বিজ্ঞাপন দেয়। এরপর বিকাশের মাধ্যমে বিভিন্নজনের কাছ থেকে টাকা আদায় করে। গত ১০ অক্টোবর ঢাকার যাত্রাবাড়ী ও বাড্ডা থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে সিআইডি গ্রেপ্তার করে পাঁচজনকে। রাজধানীর পল্টন থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে নেওয়া হয়। আসামিদের মধ্যে একজন বিকাশের এজেন্ট ও অন্যরা শিক্ষার্থী। তাঁদের কাছ থেকে ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

দুই দিনের জিজ্ঞাসাবাদের পর গতকাল আসামিদের আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির এসআই শিব্বির আহমেদ। আসামিরা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দিলে আদালত তাঁদের কারাগারে পাঠিয়ে দেন। গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা হলেন—কাওসার গাজী, সোহেল মিয়া, তারিকুল ইসলাম শোভন, রুবাইয়াত তানভির আদিত্য ও মাসুদুর রহমান ইমন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা