kalerkantho

প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন

সিআইডিতে চালু হচ্ছে ‘সাইবার পুলিশ সেন্টার’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সাইবার জগতের বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া অপরাধ দমনে পুলিশের আরেকটি বিশেষায়িত নতুন ইউনিট চালু হচ্ছে। অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) অধীনে ‘সাইবার পুলিশ সেন্টার’ নামে এই ইউনিটের সদস্যরা দেশের সাইবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণে কাজ করবেন। গতকাল বৃহস্পতিবার ‘সাইবার ক্রাইম ইউনিট গঠন, এর কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ৩৪২টি পদ সৃজন এবং ৪৯টি যানবাহন টিওঅ্যান্ডইভুক্তকরণ’ অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সিআইডির কর্মকর্তারা বলছেন, এখন প্রক্রিয়া শেষ করে লোকবল নিয়োগের মাধ্যমে নতুন এ ইউনিটটি যাত্রা শুরু করবে। ফলে সাইবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণ সহজ হবে বলেও মন্তব্য করেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাজধানীর উত্তরায় এপিবিএনের এক অনুষ্ঠানে আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছেন, সামাজিক  যোগাযোগ মাধ্যমগুলোয় ছড়িয়ে পড়া গুজব ঠেকাতে পুলিশের নতুন একটি ইউনিট গঠনের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে ছাড়পত্র পেলেই এই ইউনিটের কাজ শুরু হবে। যাদের এ ইউনিটে পদায়ন করা হবে তাদের প্রশিক্ষণের জন্য বিদেশেও পাঠানো হচ্ছে।

গতকাল সিআইডির এক কর্মকর্তা জানান,  প্রধানমন্ত্রী আজ (গতকাল) এই ইউনিটের অনুমোদন দিয়েছেন। ফলে এখন বিভিন্ন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সাইবার পুলিশ সেন্টার চালু হয়ে যাবে। 

সূত্র জানায়, থানা পুলিশের পাশাপাশি ডিজিটাল আইনে করা মামলাগুলোর তদন্তেও বিশেষ দায়িত্ব পালন করবে সাইবার পুলিশ সেন্টার। একই সঙ্গে সাইবার অপরাধের জন্য পুলিশ সদর দপ্তরেও একটি সমন্বয় সেল গঠন করা হয়েছে। সাইবারসংক্রান্ত মামলাগুলো মনিটর করবে এ সমন্বয় সেল। যাতে কোনো অবস্থাতেই গুজব ছড়িয়ে কেউ আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে না পারে।

‘সাইবার পুলিশ সেন্টার’ গঠনের বিষয়ে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে বলা হয়, ‘এনহ্যান্সিং সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ক্যাপাবিলিটি অব বাংলাদেশ পুলিশ’ প্রকল্পের আওতায় সিআইডিতে দক্ষিণ কোরিয়ার আর্থিক ও কারিগরি সহায়তায় স্থাপিত সর্বাধুনিক ডিজিটাল ফরেনসিক ল্যাব ও আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেন্টার কাজ করছে।

মন্তব্য