kalerkantho

রায়ের কপি কাশিমপুর কারাগারে

সব আসামি কয়েদি পোশাকে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা সেলে

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

১২ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের বৃহস্পতিবার ভোরে জেলখানার পোশাক পরানো হয়েছে। ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তদের কনডেম সেলে এবং কারাদণ্ডপ্রাপ্তদের কয়েদি সেলে স্থানান্তর করা হয়েছে। এ সময় তাঁদের খুব বিমর্ষ ও হতাশ দেখাচ্ছিল। কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ ও ২ এবং হাই সিকিউরিটি কারাগার কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা যায়।

কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ ও ২-এর সিনিয়র জেল সুপার সুব্রত কুমার বালা জানান, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের আদেশের কপি বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে কাশিমপুর কারাগারে এসে পৌঁছায়। এর আগেই সব আসামিকে সেলে লকআপ বা তালাবদ্ধ করানো হয়ে গিয়েছিল বলে রাতে কয়েদির পোশাক পরানো যায়নি। কারা বিধি অনুসরণ করে বৃহস্পতিবার ভোরে তাঁদের কয়েদি পোশাক পরানো হয়। এর পরই ফাঁসির আসামিদের কনডেম এবং কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের কয়েদির সেলে স্থানান্তর করা হয়। দেওয়া হয় কয়েদিদের খাবার।

সুব্রত কুমার বালা আরো জানান, ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত সাবেক উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টু, খালেদা জিয়ার ভাগ্নে লে. কমান্ডার (অব.) সাইফুল ইসলাম ডিউক ও সাবেক তিন আইজিপি মো. আশরাফুল হুদা, শহুদুল হক ও খোদা বক্স চৌধুরী ডিভিশনপ্রাপ্ত বন্দি ছিলেন। রায়ে সাজা হওয়ায় বৃহস্পতিবার থেকে ডিভিশন বাতিল করে পিন্টুকে কনডেম সেলে এবং অন্যদের কয়েদিদের সেলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। ডিভিশনপ্রাপ্ত হিসেবে এত দিন তাঁরা বিশেষ ধরনের খাবার পেতেন। এ সুবিধা বাতিল করে সাধারণ কয়েদিদের খাবার দেওয়া হচ্ছে। এ হিসাবে বৃহস্পতিবার সকালের নাশতায় রুটি-গুড়, দুপুরে ভাত, সবজি, ডাল এবং রাতে ভাতের সঙ্গে মাছ ও সবজি খেতে দেওয়া হয়েছে।

১০ ট্রাক অস্ত্র মামলায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, প্রতিরক্ষা গোয়েন্দা মহাপরিদপ্তরের (ডিজিএফআই) সাবেক মহাপরিচালক মেজর জেনারেল (অব.) রেজ্জাকুল হায়দার চৌধুরী, জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসআই) সাবেক মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মো. আবদুর রহীম—এই তিনজন ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত হওয়ায় আগে থেকেই ফাঁসির সেলে ছিলেন।

মন্তব্য