kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ সুষ্ঠু নির্বাচনের একমাত্র গ্যারান্টি

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বললেন রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রধান অন্তরায় প্রধানমন্ত্রী নিজেই—এমন মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নির্বাচন কমিশনকে সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনের সব ধরনের সহযোগিতা দেবেন। ইসিকে তাঁর সহযোগিতা দেওয়ার অর্থই হলো আগামী নির্বাচনে ফন্দিফিকির করার জন্যই যে তিনি সহযোগিতা দেবেন, এতে কোনো সন্দেহ নেই। আমরা বলে দিতে চাই, সুষ্ঠু নির্বাচনের একমাত্র গ্যারান্টি শেখ হাসিনার পদত্যাগ এবং নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন।’

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতা রিজভী এসব কথা বলেন।

রুহুল কবীর রিজভী দাবি করেন, সামনের দিনগুলোতে সরকার নিজ দলের ক্যাডারদের দিয়ে নাশকতা সৃষ্টি করে বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর এর দায় চাপাবে। ককটেল বিস্ফোরণসহ নানা ধরনের জ্বালাও-পোড়াও করা হবে পরিকল্পিতভাবে। তিনি বলেন, ‘এ জন্য নাকি আওয়ামী ক্যাডারদের সহযোগিতা করার জন্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আমরা বিভিন্নভাবে এই কথাগুলো শুনছি।’

বিরোধী দলের কর্মসূচি নিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করতে এবং কালিমা লিপ্ত করতে সরকার গোপন সহিংসতার পরিকল্পনা আঁটছে বলে দাবি করেন রিজভী। তিনি বলেন, যেভাবে তারা (সরকারি দল) ২০১৪  ও ২০১৫ সালে বিরোধী দলের আন্দোলনে নিজেরাই নাশকতা করে বিএনপির ওপর এর দায় চাপিয়েছে। ছাত্রলীগের নেতা বলছেন তাঁর ফেসবুক অ্যাকাউন্টে—‘দেখছিস আমরা ঘটালাম আর বিএনপির নেতাকর্মীরা মামলা খাইল’।

সংবাদ সম্মেলনে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গুরুতর অসুস্থ তরিকুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মাহবুব হোসেন, নিতাই রায় চৌধুরীসহ দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়। রুহুল কবীর রিজভী বলেন, ‘কেন এই মামলা? আপনারা গোরস্তান থেকে লাশকে দিয়ে ককটেল ফাটাচ্ছেন, আপনারা হজব্রত পালনরত ব্যক্তির বিরুদ্ধে একই সময়ে বাংলাদেশে নাশকতার মামলা দিচ্ছেন। আপনারা কি বিকৃত মনের অধিকারী হয়ে গেলেন? এখন গুরুতর অসুস্থ তরিকুল ইসলাম, তিনি যাবেন নাশকতা করতে?’

নয়াপল্টনে সকালে মহানগর কার্যালয়ের ভাসানী মিলনায়তনে পূর্বঘোষিত একটি আলোচনাসভা পুলিশ করতে না দেওয়ার ঘটনারও নিন্দা জানান রিজভী।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা আহমেদ আজম খান, খায়রুল কবীর খোকন, আবদুস সালাম আজাদ, মুনির হোসেন, সাইফুল ইসলাম পটু, ঢাকা জেলা সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাক প্রমুখ।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা