kalerkantho

শনিবার। ১৭ আগস্ট ২০১৯। ২ ভাদ্র ১৪২৬। ১৫ জিলহজ ১৪৪০

‘একটি মহল উন্নয়নকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেশবিরোধী একটি গোষ্ঠী বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে বিতর্কিত করতে, বিদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন বিষয়ে মিথ্যা তথ্য দিচ্ছে। এ দেশকে ওই গোষ্ঠীর রাহুমুক্ত করতে হবে। গতকাল শনিবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ হেরিটেজ ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘উন্নয়নকে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপচেষ্টা এবং জনবিভ্রান্তি’ শীর্ষক এক সেমিনারে বক্তারা এ কথা বলেন।

হেরিটেজ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাকালীন চেয়ারম্যান এবং সাবেক রাষ্ট্রদূত ওয়ালিউর রহমান বলেন, ‘বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে উল্লেখযোগ্য অবদানের কারণে অনেক স্বীকৃতি ও সম্মানের অধিকারী হয়েছে। এর পরও কিছু মহল বাংলাদেশের সুখ্যাতিতে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে আঘাত হানার লক্ষ্যে চেষ্টারত।’ তিনি আরো বলেন, ‘তারা এখন দেশকে রাহুগ্রস্ত ও হাইব্রিড রেজিম আখ্যা দিয়েছে। নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সম্পূর্ণ বৈধ, গণতান্ত্রিক ও নিয়মতান্ত্রিকভাবে জয়লাভ করে সরকার গঠন করে, এটাকে রেজিম বলে আখ্যা দেওয়া যায় না।’

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ বলেন, ‘বাংলাদেশ বর্তমানে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিশ্বে আলোচিত হচ্ছে। এর পরও যারা সরকারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলে তারা মূলত মানুষকে বিভ্রান্ত করতে চায় এবং নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়।’

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান বলেন, ‘শতভাগ গণতন্ত্র কোথাও থাকে না। বাংলাদেশে যে পরিমাণ গণতন্ত্র আছে তা বিশ্বের অন্য কোনো দেশে নেই। বাংলাদেশ যে এগিয়ে যাচ্ছে এটা অনেকের সহ্য হয় না। এ দেশকে রাহুমুক্ত করতে হবে।’ ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ড. আব্দুল মান্নান চৌধুরী বলেন, ‘বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক পরিবেশ আছে বলেই দেশে এত উন্নয়ন হয়েছে। যাদের বিদেশ চলে যাওয়ার কথা তারা চলে গেছে বলেই দেশে গণতন্ত্র আছে।’

 

 

মন্তব্য