kalerkantho

শুক্রবার । ১৯ জুলাই ২০১৯। ৪ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৫ জিলকদ ১৪৪০

হাওরাঞ্চলে দুর্যোগ

প্রধান কারণ জলবায়ু পরিবর্তন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রধান কারণ জলবায়ু পরিবর্তন

জলবায়ু পরিবর্তনকে হাওরাঞ্চলে প্রাকৃতিক দুর্যোগের প্রধান কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা এ ধরনের দুর্যোগ মোকাবেলায় পূর্ব প্রস্তুতি গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন। সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনের আইপিডি সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সেমিনারে এ আহ্বান জানানো হয়।

সর্বদলীয় জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক সংসদীয় ফোরাম আয়োজিত ‘উপকূলীয় এলাকায় জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব, শিশু-কিশোর-যুবকদের সুরক্ষা : মনপুরা দ্বীপের উদাহরণ’ শীর্ষক এই সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. হাছান মাহমুদ। প্রধান অতিথি ছিলেন ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট মো. ফজলে রাব্বী মিয়া। আলোচনায় অংশ নেন পানি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ড. আইনুন নিশাত ও অধ্যাপক ড. শারমিদ নিলোর্মি, সংসদ সদস্য সাইমুম সরোয়ার কমল, টিপু সুলতান, নবী নেওয়াজ ও জেবুন্নেছা আফরোজ এবং ইউনিসেফ প্রতিনিধি এডওয়ার্ড বেইগবেডার প্রমুখ।

সেমিনারে ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন এখন বিশ্বব্যাপী একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা। উন্নত দেশগুলো শিল্পায়নের নামে যে হারে কার্বন নিঃসরণ করছে তার বিরূপ প্রভাব পরিবেশের ওপর পড়ছে। এতে ভুক্তভোগী হচ্ছে বাংলাদেশসহ অন্য উন্নয়নশীল দেশগুলো। তিনি আরো বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে প্রাকৃতিক দুর্যোগ বাড়ছে। দেশের হাওর অঞ্চলে বন্যা দেখা দিয়েছে। তাই এ ধরনের দুর্যোগ মোকাবেলার প্রস্তুতি গ্রহণের পাশাপাশি পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। হাওর ও উপকূলীয় অঞ্চলে বাঁধ সংস্কারে নতুন কোনো পদ্ধতি ব্যবহার করা যায় কি না সে বিষয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য বিশেষজ্ঞদের প্রতি আহ্বান জানান ডেপুটি স্পিকার।

পানি বিশেষজ্ঞ ড. আইনুন নিশাত বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে অপ্রত্যাশিত প্রাকৃতিক দুর্যোগ হানা দিচ্ছে। যখন বৃষ্টি হওয়ার কথা তখন বৃষ্টি হচ্ছে না। আবার যখন প্রয়োজন নেই তখন হচ্ছে। এটা জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব। এই প্রভাবের কারণেই হাওর অঞ্চলে বন্যা। তিনি বলেন, মার্চের মধ্যেই বাঁধ সংস্কারের কাজ শেষ করা প্রয়োজন। কারণ হাওর অঞ্চলে এপ্রিলের মাঝামাঝি থেকে বন্যা শুরু হয়। তাই বন্যা শুরু হওয়ার আগেই বাঁধ সংস্কারের কাজ শেষ করতে হবে।

হাওর ও উপকূলীয় অঞ্চলে বাঁধ সংস্কারে সমন্বিত পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়ে অধ্যাপক ড. শারমিদ নিলোর্মি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে দেশে দুর্যোগ বাড়ছে। এখন দুর্যোগ মোকাবেলার প্রস্তুতিও বাড়াতে হবে। কোথায় কী ধরনের দুর্যোগ আসতে পারে তা চিহ্নিত করতে হবে। সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

সভাপতির বক্তব্যে ড. হাসান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনের ইনোসেন্ট ভিক্টিম। দায় নেই কিন্তু আমরা জলবায়ু পরিবর্তনের অসহায় শিকার। তিনি আরো বলেন, হাওরগুলোতে চলমান বিপর্যয়ের মূল কারণ জলবায়ু পরিবর্তন। এ ক্ষেত্রে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কার্যক্রমে গাফিলতিও রয়েছে। তিনি পানি উন্নয়ন বোর্ডকে আধুনিকায়ন ও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে উপকূলীয় অঞ্চলের বাঁধ সংস্কারের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

মন্তব্য