kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

সংসদে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী

আমিরাতে দ্রুতই কর্মী পাঠানো শুরু হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সংযুক্ত আরব আমিরাতে দ্রুতই কর্মী পাঠানো শুরু হবে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি। গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি এ তথ্য জানান।

সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য উম্মে রাজিয়া কাজলের লিখিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, বাংলাদেশি কর্মী পাঠানোর বিষয়ে গত বছরের ১৭ অক্টোবর সংযুক্ত আরব আমিরাতের একটি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিদল ঢাকা সফরকালে শ্রমবাজার উন্মুক্ত করার বিষয়ে আশ্বাস দেয়। আশা করা যায় শিগগিরই সংযুক্ত আরব আমিরাতে কর্মী পাঠানো শুরু হবে।

মন্ত্রী জানান, ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিলসহ মোট ৫০টি নতুন শ্রমবাজার সম্পর্কে গবেষণা সম্পন্ন হয়েছে। ইতিমধ্যে নতুনভাবে রাশিয়া ও থাইল্যান্ডে কর্মী পাঠানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। রাশিয়ায় কর্মী পাঠানোর বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে রাশিয়ার সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষরের কাজ চলমান আছে।

মালয়েশিয়া বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান শ্রমবাজার উল্লেখ করে মন্ত্রী জানান, সরকারের সফল শ্রম কূটনৈতিক তৎপরতার ফলে ২০০৮ সালে বন্ধ হওয়া মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার জিটুজি চুক্তির মাধ্যমে চালু হয়। সরকারি ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি বেসরকারি উদ্যোগে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ লক্ষ্যে মালয়েশিয়ার সঙ্গে জিটুজি প্লাস নামে আরো একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এর আওতায় কর্মী পাঠানোর বিষয়টি বর্তমানে চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

আওয়ামী লীগের সদস্য সামশুল হক চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, ইউরোপে দক্ষ কর্মীর চাহিদা বেশি। ইউরোপ মহাদেশের কয়েকটি দেশে দক্ষ কর্মী পাঠানো হচ্ছে। এ ছাড়া সরকার বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অধিকহারে কর্মসংস্থানের মাধ্যমে বেকারত্ব নিরসনের লক্ষ্যে দ্বিপক্ষীয় আলোচনার মাধ্যমে কর্মী পাঠানো বাড়ানোর বিষয়ে অব্যাহত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

জাতীয় পার্টির সদস্য মো. শওকত চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, বিশ্বের ১৬২টি দেশে এক কোটিরও বেশি বাংলাদেশি কর্মী কর্মরত আছে।