kalerkantho

সোমবার । ২৭ জুন ২০২২ । ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৬ জিলকদ ১৪৪৩

নব্য জেএমবির দুই সদস্য গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ ডিসেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নব্য জেএমবির দুই সদস্য গ্রেপ্তার

রাজধানীর পল্লবী থেকে গ্রেপ্তার নব্য জেএমবির দুই সদস্য। ছবি : কালের কণ্ঠ

জঙ্গি সংগঠন নব্য জেএমবির দুই সদস্য আরিফুর রহমান মিলন (২১) ও খাদেমুল ইসলামকে (২৮) গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গত সোমবার দিবাগত রাতে রাজধানীর পল্লবী এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে র‌্যাব জানিয়েছে। তাদের হেফাজত থেকে ধারালো অস্ত্র, নগদ টাকা ও জিহাদি বই উদ্ধার করা হয়েছে।

র‌্যাব-৪-এর পরিচালক খন্দকার লুত্ফুল কবির জানান, খাদেমুল নব্য জেএমবির দাওয়াতি গ্রুপের সদস্য।

বিজ্ঞাপন

অর্থের বিনিময়ে জিহাদের উদ্দেশ্যে বাড়ি ছেড়ে আসা জঙ্গিদের সে আশ্রয় দিত। মিলনকে সে-ই নব্য জেএমবির সদস্য হতে সহযোগিতা করে। তাদের কাছ থেকে পাঁচটি জিহাদি বই, বিভিন্ন ধরনের লিফলেট, ৩৭ হাজার টাকা ও চারটি ধারাল অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

জঙ্গি মিলনের বরাত দিয়ে র‌্যাব জানিয়েছে, ২০১১ সালে বিজ্ঞান বিভাগ  থেকে এসএসসি পাস করে মিলন ডিমলা ইসলামিয়া ডিগ্রি কলেজে ভর্তি হয়েছিল। ২০১৪ সালে এইচএসসি পাস করে সাভার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে অনার্সে ভর্তি হলেও অর্থাভাবে লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যায়। গত জানুয়ারিতে ফেসবুকের মাধ্যমে কুমিল্লার ফজলে রাব্বী নামে একজনের সঙ্গে তার যোগাযোগ হয়। নব্য জেএমবির এ সদস্যের সঙ্গে পরে বিশেষ মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে যোগাযোগ বাড়তে থাকে। জুলাই মাসে নিউ জেএমবির শীর্ষস্থানীয় নেতা আব্দুর রহমানের সঙ্গে পরিচয় হয় তার। এরপর তারা মিলনকে অর্থ লেনদেনে বিভিন্ন জায়গায় পাঠায়।

জিজ্ঞাসাবাদে খাদেমুল জানিয়েছে, ফায়দাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ার পর অর্থাভাবে আর লেখাপড়া হয়নি। রাজধানীর ফকিরাপুল পানির ট্যাংকি এলাকায় একটি ব্যাগ তৈরির কারখানায় কাজ করেছে সে। ছোট ভাই নাজমুল ২০১৩ সালে আজমপুর ছাপড়া মসজিদে জুমার নামাজের পর দেখতে পায় কিছু  লোক ল্যাপটপের মাধ্যমে মাওলানা জসীম উদ্দিন রহমানীর ওয়াজ শুনছেন। নাজমুল ওই ওয়াজ  মোবাইলের  মেমরি কার্ডে  লোড করে খাদেমুলকে শোনালে সে রহমানীর ভক্ত হয়ে ওঠে। এরপর ধীরে ধীরে নব্য জেএমবিতে জড়িয়ে পড়ে। গত মার্চ মাস থেকে সে নব্য জেএমবির (সারোয়ার-তামিম গ্রুপ) দাওয়াতি কার্যক্রম পরিচালনায় জড়িয়ে পড়ে।



সাতদিনের সেরা