kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

মহানগর বিএনপির সভায় গয়েশ্বর

ঐক্যবদ্ধভাবে পালিয়ে থাকলে ভবিষ্যৎ অন্ধকার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৬ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, ‘সভায় বসে জেলের তালা ভাঙব বলে স্ল্লোগান দিলে হবে না, ঘরে বসে থাকলে চলবে না। জেলের তালা ভাঙতে হলে যথাসময়ে, যথাস্থানে থাকতে হয়। নেতারা আবার ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে থাকার কথা বলেছেন। অতীতের অভিজ্ঞতায় বলছি, যদি আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে পালিয়ে থাকতে হয়, তাহলে তো ভবিষ্যৎ অন্ধকার।’ গতকাল শনিবার বিএনপির মহানগর কমিটির সভায় তিনি এ কথা বলেন।

নয়াপল্টনে মহানগর বিএনপির কার্যালয়ে গতকাল মহানগর আহ্বায়ক কমিটির এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক কাজী আবুল বাশারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক আবুল খায়ের ভুঁইয়া, যুববিষয়ক সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ। সভায় দলের প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উদ্যাপন ও কারাবন্দি নেতাদের বিষয়ে আলোচনা হয়। সভায় নেতাকর্মীদের মুক্তি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে ২০ জানুয়ারি ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত হয়।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘রাজধানীতে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে। ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে হাসিনার রাজত্ব চলে গিয়েছিল। কিন্তু রাজধানী ঢাকা তিনি রক্ষা করেছেন। সব সরকারের পতন রাজধানীতেই হয়। অতীত অভিজ্ঞতার আলোকে আমাদের হারানো গৌরব যদি পুনরুজ্জীবিত করতে চাই, তাহলে রাজধানী থেকে স্বৈরাচার দুরাচার বিতাড়িত করতে হবে। রাজধানীর বাইরে কোনো জায়গা নেই, যেখানে তিনি পা রাখবেন। অনেক আগেই সেখানে অবরোধ হয়ে গেছে। মানুষ তো বিএনপির সঙ্গে আছে। আমরা যারা নিজেদের নেতা ভাবি, তাঁরা যদি মানুষের মতো সাড়া দিতে পারতাম, তাহলে হাসিনার ক্ষমতার আয়ু এত দিন থাকার কথা না। এখন নেতাকর্মীদের ভেদাভেদ ও বিভক্তি ভুলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

মন্তব্য