kalerkantho

বুধবার । ২৯ জানুয়ারি ২০২০। ১৫ মাঘ ১৪২৬। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হামলা

রাজধানীতে সংস্কৃতি কর্মীদের প্রতিবাদ সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৬ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজধানীতে সংস্কৃতি কর্মীদের প্রতিবাদ সমাবেশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে গতকাল বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার শিল্পকলা একাডেমির সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সুরসম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ সংগীতাঙ্গনসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের কার্যালয়ে হামলার প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছে ঢাকার সংস্কৃতিকর্মীরা। গতকাল শনিবার বিকেলে সংস্কৃতিকর্মীদের দুটি সংগঠন বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।

বিকেল ৪টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সামনে সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আকতারুজ্জামানের সঞ্চালনায় সমাবেশে নাট্যজন মান্নান হীরা বলেন, ‘মৌলবাদী অপশক্তি এখন তিনটি শক্তির বিরুদ্ধে আক্রমণ করছে। তাদের আক্রমণের লক্ষ্য বিজ্ঞান ও বিজ্ঞানমনস্ক ব্যক্তি, প্রগতিশীল ব্যক্তি এবং সংস্কৃতিকর্মী ও প্রতিষ্ঠান।’

গণসংগীতশিল্পী ফকির আলমগীর বলেন, ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়া সুরের শহর। সুরের শহরে যে অসুরের তাণ্ডব হয়েছে, এটি কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। দীর্ঘদিনের ষড়যন্ত্রের ধারাবাহিকতায় মৌলবাদী ও সাম্প্রদায়িক শক্তি এ ঘটনা ঘটিয়েছে।’

ফেডারেশনের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ বিক্ষোভ সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন রামেন্দু মজুমদার, আতাউর রহমান, মামুনুর রশীদ, গোলাম কুদ্দুছ, ঝুনা চৌধুরী প্রমুখ।

এ ছাড়া বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী বিকেল সাড়ে ৪টায় শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে। এতে সভাপতিত্ব করেন উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক প্রবীর সরদার। বক্তব্য দেন সুরসম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁর উত্তরসূরি শেখ সাদী খান, শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. শফিউদ্দিন আহমেদ, সাংবাদিক প্রবীর শিকদার, গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার, মঞ্চের অন্যতম সংগঠক মারুফ রসুল প্রমুখ। সঞ্চালনা করেন উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সদস্য আরিফ নূর।

উল্লেখ্য, আগের দিনের সংঘর্ষে এক মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার তার সহপাঠীদের বিক্ষোভের সময় দিনভর রেলওয়ে স্টেশন, ব্যাংক, রাজনৈতিক দলের কার্যালয় ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানগুলোর কার্যালয়ে হামলা চালানো হয়। আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ সংগীতাঙ্গনে। এ ছাড়া সাহিত্য একাডেমি, শিশু নাট্যম, তিতাস সাহিত্য-সংস্কৃতি পরিষদ, শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্মৃতি পাঠাগার, তিতাস ললিতকলা একাডেমিও হামলার শিকার হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা