kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

আশকোনায় হচ্ছে র‌্যাবের নিজস্ব সদর ভবন

সরোয়ার আলম   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৬ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



আশকোনায় হচ্ছে র‌্যাবের নিজস্ব সদর ভবন

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে (র‌্যাব) আরো সংহত করা হচ্ছে। নিজস্ব অবকাঠামো, জনবল ও উন্নত প্রযুক্তি দিয়ে সমৃদ্ধ করা হচ্ছে। এ বাহিনীর জন্য নিজস্ব জমিতে অত্যাধুনিক ভবন নির্মাণ, ফরেসনিক ল্যাবরেটরি ও ট্রেনিং সেন্টার গড়ে তোলার কাজ শুরু হয়েছে। দেওয়া হচ্ছে উন্নত যানবাহন ও ইলেকট্রনিক সরঞ্জাম। ঢাকার আশকোনায় সদর দপ্তরের জন্য ভবন নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে।

ইতিমধ্যে প্রযুক্তিসমৃদ্ধ করা হয়েছে র‌্যাবকে; আরো উন্নত প্রযুক্তি দেওয়া হবে। জনবল বাড়ানোর পাশাপাশি মহাপরিচালককেও দেওয়া হয়েছে গ্রেড-১-এর মর্যাদা। র‌্যাবে নিযুক্ত সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা অর্জিত রাষ্ট্রীয় পদক পিপিএম (প্রেসিডেন্টস পুলিশ মেডাল), বিপিএম (বাংলাদেশ পুলিশ মেডাল) ব্যবহারের অনুমতি পাচ্ছেন। এ মাসেই পুলিশ সপ্তাহে এ ঘোষণা দেওয়া হবে।

র‌্যাবের জন্য ভবন নির্মাণ, জনবল ও প্রযুক্তি সরবরাহের জন্য তিনটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। বাজেট ধরা হয়েছে মোট ৯৬৪ কোটি ৬২ লাখ ১৩ হাজার টাকা। প্রকল্প জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) অনুমোদিত হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জের সাত খুন, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড ও গুম-অপহরণের ঘটনায় র‌্যাবের ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে। এর পরও জঙ্গিবিরোধী অভিযান পরিচালনায়, চরমপন্থী ও শীর্ষ সন্ত্রাসীদের দমনে বিশেষ ভূমিকা রাখছে এ বাহিনী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, সংস্থাটিকে আরো সংহত করার জন্য নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। র‌্যাবের সদর দপ্তরসহ বিভিন্ন ব্যাটালিয়নের নিজস্ব ভবন নির্মাণের জন্য অর্থ দিচ্ছে সরকার। জনবলও বাড়ানো হবে। উন্নত প্রযুক্তির ব্যবস্থা করা হবে।

র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল জিয়াউল আহসান জানান, র‌্যাবের উন্নয়নের জন্য সরকার আন্তরিক। তিনটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। র‌্যাব সদর দপ্তরের ভবন, প্রতিটি ব্যাটালিয়নের নিজস্ব ভবন ও ট্রেনিং স্কুল নির্মাণ করা হবে। আশকোনায় র‌্যাব সদর দপ্তরের জন্য ভবন তৈরির কাজ শুরু হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্র জানায়, দীর্ঘদিন ধরে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে র‌্যাবের কার্যক্রম চলছে ভাড়া বাড়িতে। কয়েকটি ব্যাটালিয়নের অফিস আছে কমিউনিটি সেন্টারে। মাসের পর মাস ভাড়া দেয় না বলে র‌্যাবের বিরুদ্ধে অভিযোগও আছে। র‌্যাব সদর দপ্তরের নিজস্ব ভবনও নেই। সিভিল এভিয়েশনের ভবনে কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। গত বছর র‌্যাব সদর দপ্তর থেকে সরকারের কাছে একটি প্রস্তাব পাঠানো হয়। প্রস্তাবটি সরকারের নীতিনির্ধারকরা যাচাই করে দেখেন। পরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় র‌্যাবের উন্নয়নের জন্য তিনটি প্রকল্পের উদ্যোগ নেয়। প্রথম প্রকল্পের বাজেট ধরা হয় ৪৫৯ কোটি ২২ লাখ ৯৭ হাজার টাকা, দ্বিতীয় প্রকল্পের ৩০৬ কোটি ৬২ লাখ ১৬ হাজার টাকা এবং তৃতীয় প্রকল্পের জন্য বাজেট ধরা হয় ১৯৯ কোটি ১৭ লাখ টাকা।

সূত্র জানায়, দ্রুত, গোপন ও কার্যকর যোগাযোগ এবং এমআইএস সেবা প্রদানের লক্ষ্যে র‌্যাব সদর দপ্তরে কমিউনিকেশন অ্যান্ড এমআইএস উইংয়ের কার্যক্রম পূর্ণাঙ্গরূপে শুরু হচ্ছে শিগগির। আগে অপারেশনস উইংয়ের শাখা হিসেবে এর কার্যক্রম চালু ছিল। নতুন উইংয়ে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি সংযোজন করা হবে। র‌্যাবের সব কটি উইংকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। র‌্যাবও একটি পরিকল্পনা জমা দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, র‌্যাবের কাজ আরো গতিশীল করা হবে। মহাপরিচালকের পদটি গ্রেড-১-এর মর্যাদায় উন্নীত করা হয়েছে। র‌্যাবে নিযুক্ত সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা অর্জিত রাষ্ট্রীয় পদক পিপিএম ও বিপিএম ব্যবহারের অনুমতি পাবেন। চলতি মাসে অনুষ্ঠেয় পুলিশ সপ্তাহে এর ঘোষণা আসবে।

সূত্র জানায়, র‌্যাব-১-এর জন্য ঢাকার পূর্বাচলে প্রায় চার একর জায়গা, র‌্যাব-২-এর জন্য রায়েরবাজারে ছয় একর জায়গা, র‌্যাব-৩-এর জন্য সবুজবাগে প্রায় পাঁচ একর জায়গা, র‌্যাব-৪-এর জন্য তুরাগের বাউনিয়ায় ১০ একর জায়গা, র‌্যাব-১০-এর জন্য কামরাঙ্গীরচরে প্রায় ছয় একর জায়গা, র‌্যাব-৫-এর জন্য রাজশাহীর সাহেববাজারে, র‌্যাব-৬-এর জন্য খুলনার খালিশপুরে, র‌্যাব-৭-এর জন্য চট্টগ্রামের পতেঙ্গায়, র‌্যাব-৮-এর জন্য বরিশালের রূপাতলীতে, র‌্যাব-৯-এর জন্য সিলেটের ইসলামপুরে, র‌্যাব-১১-এর জন্য নারায়ণঞ্জের আদমজী এলাকায়, র‌্যাব-১২-এর জন্য সিরাজগঞ্জের চকশিয়ালকোলে, র‌্যাব-১৩-এর জন্য রংপুরের শাপলা চত্বর এলাকায়, র‌্যাব-১৪-এর জন্য ময়মনসিংহের টিচার্স ট্রেনিং কলেজ এলাকায় জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হবে ও ভবন নির্মাণ করা হবে। ইতিমধ্যে কয়েকটি ব্যাটালিয়নের জন্য ভবন নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। গাজীপুর সদরে র‌্যাব ফোর্সেস ট্রেনিং স্কুলের জন্য কয়েকটি ভবন তৈরি করা হবে। এ বছরই এসব প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করার কথা রয়েছে।

সূত্র আরো জানায়, শাহজালাল বিমানবন্দর-সংলগ্ন হজ ক্যাম্পের পাশে র‌্যাব সদর দপ্তরের জন্য সাড়ে আট একর জায়গা দিয়েছে সরকার।

মন্তব্য