kalerkantho

শুক্রবার  । ১৮ অক্টোবর ২০১৯। ২ কাতির্ক ১৪২৬। ১৮ সফর ১৪৪১              

বকেয়া পরিশোধসহ পাঁচ দফা দাবি

খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের রাজপথ রেলপথ অবরোধ

খুলনা অফিস   

১৫ জুন, ২০১৫ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের রাজপথ রেলপথ অবরোধ

পাঁচ দফা দাবিতে গতকাল রবিবার খুলনার রাষ্ট্রায়াত্ত জুট মিল শ্রমিকরা রাজপথ-রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

পাট খাতে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ, বকেয়া মজুরি পরিশোধ, নতুন মজুরি কমিশন গঠনসহ পাঁচ দফা দাবিতে ধর্মঘট ও অনশন করার পর গতকাল রবিবার রাজপথ ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে খুলনা-যশোর অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকরা। বাংলাদেশ রাষ্ট্রায়ত্ত জুট মিল সিবিএ-নন সিবিএ ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে গতকাল সকাল ১০টা থেকে চার ঘণ্টা এই কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচি চলাকালে কয়েক হাজার শ্রমিক পৃথক পৃথকভাবে খুলনার নতুন রাস্তার মোড়, আটরা গিলাতলায় আলিম ও ইস্টার্ন জুট মিলের মাঝামাঝি ও রাজঘাট এলাকায় সড়ক ও রেলপথ অবরোধ করে।

অবরোধের সময় শ্রমিকরা সড়কে আগুন জ্বেলে এবং রেললাইনের ওপর শুয়ে পড়ে বিক্ষোভ করে। মহাসড়ক অবরোধের কারণে খুলনা-যশোরের পথে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। তবে ওই সময় কোনো ট্রেন না থাকায় চলাচলে বিঘ্ন হয়নি।

অবরোধ চলাকালে আলাদা আলাদা সমাবেশও করে শ্রমিকরা। এসব সমাবেশে বক্তব্য দেন ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক সোহরাব হোসেন, কাওছার আলী মৃধা, দ্বীন ইসলাম, খলিলুর রহমান, বেল্লাল হোসেন, আব্দুল মান্নান প্রমুখ।

কর্মসূচি চলাকালে জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন বাংলাদেশের জেলা সভাপতি মনির আহমেদ, ওয়ার্কার্স পার্টির এস এম ফারুক-উল ইসলাম, পাট রক্ষা কমিটির খালিদ হোসেন, ইসলামী আন্দোলনের মাওলানা নাসির উদ্দিনসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা শ্রমিকদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

গতকাল রাজপথ ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ রাষ্ট্রায়ত্ত জুট মিল সিবিএ-নন সিবিএ ঐক্য পরিষদের পূর্ব ঘোষিত ১৮ দিনের কর্মসূচি শেষ হয়েছে।

এর আগে খুলনা-যশোর অঞ্চলের প্লাটিনাম, ক্রিসেন্ট, স্টার, ইস্টার্ন, আলিম, খালিশপুর, জেজেআই, কার্পেটিং মিলের শ্রমিক-কর্মচারীরা বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে। এর মধ্যে ৮ জুন ২৪ ঘণ্টার ধর্মঘট, ১০ জুন গণঅনশন কর্মসূচি পালিত হয়।

প্লাটিনাম জুট মিল শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, 'কয়েক দিনের মধ্যে ঢাকায় শ্রমিক নেতাদের বৈঠকের মাধ্যমে নতুন কর্মসূচি ও করণীয় নির্ধারণ করা হবে।'

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা