kalerkantho

শনিবার । ৫ আষাঢ় ১৪২৮। ১৯ জুন ২০২১। ৭ জিলকদ ১৪৪২

৩৪তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৯৮২২

মৌখিক পরীক্ষা শুরু ২৬ জানুয়ারি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ ডিসেম্বর, ২০১৪ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৩৪তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষায় ৯ হাজার ৮২২ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন। পরীক্ষা শেষ হওয়ার প্রায় সাড়ে আট মাস পর এই ফল প্রকাশ হলো। উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আগামী ২৬ জানুয়ারি। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি) তাদের ওয়েবসাইটে এই ফল প্রকাশ করেছে।

পিএসসির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রার্থীরা কমিশনের ওয়েবসাইট (www.bpsc.gov.bd) থেকে তাঁদের ফল জানতে পারবেন। টেলিটক মোবাইল ফোন থেকে এসএমএসের মাধ্যমেও ফল জানা যাবে। এসএমএসের মাধ্যমে ফল জানতে BCS লিখে স্পেস দিয়ে ৩৪ লিখে স্পেস দিয়ে রেজিস্ট্রেশন নম্বর লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে। ফল পাওয়া যাবে ফিরতি এসএমএসে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, ২৬ জানুয়ারি থেকে সাময়িকভাবে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মৌখিক পরীক্ষা শুরু হবে। মৌখিক পরীক্ষার জন্য কমিশন থেকে ডাকযোগে কোনো সাক্ষাৎকারপত্র পাঠানো হবে না। মৌখিক পরীক্ষার সূচি প্রকাশের পর সাক্ষাৎকারপত্রটি কমিশনের ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করে নিতে হবে।

পিএসসি সূত্র জানায়, ২০১৩ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি দুই হাজার ৫২টি পদের বিপরীতে ৩৪তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। গত বছরের ২৪ মে অনুষ্ঠিত প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় প্রায় এক লাখ ৯৬ হাজার পরীক্ষার্থী অংশ নেন। ওই বছরের ৮ জুলাই ফল প্রকাশ হয়। এতে ১২ হাজার ৩৩ জন উত্তীর্ণ হন। কিন্তু এই প্রিলিমিনারিতে প্রথমবারের মতো কোটা পদ্ধতি চালু করায় অনেক মেধাবী বঞ্চিত হন। আবার অপেক্ষাকৃত কম নম্বর পেয়েও কোটার প্রার্থীরা উত্তীর্ণ হন। এ নিয়ে সারা দেশে আন্দোলন ছড়িয়ে পড়লে গত বছরের ১০ জুলাই ফল পুনর্মূল্যায়নের সিদ্ধান্ত নেয় পিএসসি। এরপর ১৪ জুলাই প্রচলিত পদ্ধতিতে সংশোধিত ফল প্রকাশ করা হয়। এতে রেকর্ডসংখ্যক ৪৬ হাজার ২৫০ জন উত্তীর্ণ হন। তবে প্রথমবারের প্রকাশিত ফলের সবাইকে রেখেই সংশোধিত ফল প্রকাশ করা হয়েছে বলে পিএসসি দাবি করলেও ২৮১ জন ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী কোটার প্রার্থী বাদ পড়ে যান। উত্তীর্ণ ৫৯ জনের পক্ষে গত বছরের ২৮ জুলাই রিট দায়ের করেন ব্যারিস্টার জোতির্ময় বড়ুয়া। পরে কোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী ২৮১ জনই লিখিত পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পান। কিন্তু বিপুলসংখ্যক প্রার্থীর লিখিত পরীক্ষা নিয়ে সংকটে পড়ে পিএসসি। চলতি বছরের ৩১ মার্চ এই লিখিত পরীক্ষা শেষ হয়।

 



সাতদিনের সেরা