kalerkantho

সোমবার । ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৪ জুন ২০২১। ২ জিলকদ ১৪৪২

খতনা কার্ডেও 'পলিটিকস'

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি   

১৯ ডিসেম্বর, ২০১৪ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



খতনা কার্ডেও 'পলিটিকস'

পারিবারিক অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণপত্রে দলীয় স্লোগানসহ বঙ্গবন্ধু, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মণি ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যবহার করেন রাজবাড়ী যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল হোসেন শিকদার। ছবি : কালের কণ্ঠ

পারিবারিক অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণপত্রে দলীয় স্লোগানসহ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মণি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ব্যবহার করেছেন রাজবাড়ী জেলা যুবলীগের প্রভাবশালী এক নেতা। এ নিয়ে নিজ দলের নেতা-কর্মীরাই ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, রাজবাড়ী জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. আবুল হোসেন শিকদার তাঁর একমাত্র ছেলে রিফাতের সুন্নতে খতনা উপলক্ষে আজ শুক্রবার দুপুরে এক প্রীতিভোজের আয়োজন করেছেন। রাজবাড়ী সদরের কাজীবাধা গ্রামে তাঁর নিজ বাড়িতে এ অনুষ্ঠানের জন্য রঙিন কার্ড ছাপিয়ে এরই মধ্যে জেলা সদরসহ বিভিন্ন উপজেলার অনেক সুধীজনকে নিমন্ত্রণ করা হয়েছে। ওই নিমন্ত্রণপত্রের শুরুতে লেখা 'জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু'। এর এক পাশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মণি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি, অন্য পাশে রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলীর ছবি। আর মাঝে আবুলের ছেলে রিফাতের ছবি। এদিকে জেলা যুবলীগ নেতার ছেলের সুন্নতে খতনা অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণপত্র পেয়ে স্থানীয় অনেকেই বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে গোয়ালন্দ উপজেলা যুবলীগের সাবেক এক নেতা বলেন, 'বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, শেখ ফজলুল হক মণি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের অহংকার। তাঁরা কোনো নেতার পারিবারিক প্রতীক হতে পারেন না। তাই জেলা যুবলীগ নেতার ব্যক্তিগত অনুষ্ঠানের এমন নিমন্ত্রণপত্র দেখে দলের নেতা-কর্মীরা ক্ষুব্ধ।' এ নিয়ে স্থানীয় রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে।

এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুজ্জামান মিয়া বলেন, 'জেলা যুবলীগ নেতার পারিবারিক অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণপত্রে এভাবে দলীয় স্লোগান ও বঙ্গবন্ধুসহ প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যবহার করায় আমরা বিস্মিত।' এ ব্যাপারে জানতে রাজবাড়ী জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. আবুল হোসেন শিকদারের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।