kalerkantho

শনিবার । ৯ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৭ জমাদিউস সানি ১৪৪১

ব্যক্তিত্ব

২৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যক্তিত্ব

উইলিয়াম বাটলার ইয়েটস

কবি ও নাট্যকার উইলিয়াম বাটলার ইয়েটসের জন্ম আয়ারল্যান্ডে ১৩ জুন ১৮৬৫ সালে। তিনি জন্মগ্রহণ ও পড়াশোনা করেছেন ডাবলিনে; কিন্তু তাঁর শৈশবের বেশির ভাগ সময় কেটেছে আয়ারল্যান্ডের শহর কাউন্টি স্লিগোতে। যুবক বয়সেই তাঁর কবিতা পড়ার শুরু এবং তখনই তিনি আয়ারল্যান্ডীয় কিংবদন্তি ও অকাল্ট সাহিত্যের দ্বারা গভীরভাবে প্রভাবিত হন। তাঁর প্রথম পর্যায়ের লেখায় এই প্রভাব দেখা যায়। উনিশ শতকের শেষ পর্যন্ত তাঁর এই কাজের ধারা চলতে থাকে। তাঁর সর্বপ্রথম কবিতাগ্রন্থ প্রকাশিত হয় ১৮৮৯ সালে। এক হিসেবে তাঁকে ধরা হয় ঐতিহ্যগত ভাবধারার অত্যন্ত দক্ষতাসম্পন্ন একজন কবি। তাঁকে আইরিশ ও ব্রিটিশ উভয় সাহিত্যেরই একজন প্রবাদপুরুষ হিসেবে গণ্য করা হয়। জীবনের শেষ বছরগুলোতে তিনি দুই মেয়াদে আইরিশ সিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তাঁর সাহিত্যকর্মে কেল্টিক সাহিত্য, লেডি গ্রেগরি এবং অ্যাবি থিয়েটারের স্থপতি এডওয়ার্ড মার্টিনের গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব বিদ্যমান। ১৯২৩ সালে তিনি সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। তাঁর পুরস্কারপ্রাপ্তি সম্পর্কে নোবেল কমিটির বর্ণনা ছিল, ‘অনুপ্রেরণা জাগানো কবিতা, যা খুবই শৈল্পিকভাবে পুরো জাতির স্পৃহা জাগানো ভাবটিকে প্রকাশ করেছে।’ তিনি ছিলেন কোনো ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সম্মানপ্রাপ্ত প্রথম আয়ারল্যান্ডীয়। তাঁকে বলা হয় সেই গুটিকয়েক সাহিত্যিকের একজন, যাঁদের সর্বোত্কৃষ্ট কাজগুলো লিখিত হয়েছে নোবেল পুরস্কার জয়ের পর। তাঁর এসব কাজের মধ্যে আছে ‘দ্য টাওয়ার’ এবং ‘দ্য উইন্ডিং স্টেয়ার অ্যান্ড আদার পোয়েমস’। ২৮ জানুয়ারি ১৯৩৯ সালে তিনি মারা যান।

 

[উইকিপিডিয়া অবলম্বনে]

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা