kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ জানুয়ারি ২০২০। ৭ মাঘ ১৪২৬। ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ব্যক্তিত্ব

১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যক্তিত্ব

রবিশঙ্কর

 

পণ্ডিত রবিশঙ্করের জন্ম ব্রিটিশ ভারতের বারানসিতে ৭ এপ্রিল ১৯২০ সালে। তাঁর বাবার নাম শ্যাম শঙ্কর চৌধুরী এবং মা হেমাঙ্গিনী। তাঁর আদি পৈতৃক বাড়ি বাংলাদেশের নড়াইল জেলায়। ভারতীয় বাঙালি সংগীতজ্ঞ হিসেবে সেতারবাদনে তিনি বিশ্বব্যাপী সুপরিচিত। দীর্ঘতম আন্তর্জাতিক কর্মজীবনের জন্য তিনি গিনেস বুক রেকর্ডের অধিকারী ছিলেন। ১৯৩০ সালে তিনি প্যারিসে বড় ভাইয়ের কাছে শিক্ষাগ্রহণের জন্য যান এবং ১২ বছর বয়স থেকেই তিনি ভাইয়ের নাচের দলের নৃত্যশিল্পী ও সেতারবাদক হয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠান করে বেড়িয়েছেন ভারত ও ইউরোপের বিভিন্ন শহরে। ১৯৩৮ সালে ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁর কাছে সেতারের দীক্ষা নিতে শুরু করেন। ১৯৩৯ সালে ভারতের আহমেদাবাদ শহরে তাঁর সর্বপ্রথম সাধারণের জন্য উন্মুক্ত একক সেতার পরিবেশন অনুষ্ঠান হয়। পরে তিনি নিজেকে তুলে ধরেন একজন বৈশ্বিক সংগীতজ্ঞ, সংগীতস্রষ্টা, পারফরমার ও ভারতীয় শাস্ত্রীয় সংগীতের মেধাবী দূত হিসেবে। এ সময়ে তিনি তাঁর সাংগীতিক সৃজনশীলতার অন্যান্য শাখায়ও কাজ করেন। তিনি কবি ইকবালের ‘সারে জাঁহাসে আচ্ছা’ কবিতাকে সুর দিয়ে ভারতীয় জাতীয় সংগীতের পর সবচেয়ে জনপ্রিয় গান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন। ১৯৪৯ সালে তিনি দিল্লিতে অল ইন্ডিয়া রেডিওর সংগীত পরিচালক হিসেবে যোগ দেন। এ সময়ে তাঁর উল্লেখযোগ্য সৃষ্টি—‘পথের পাঁচালী’, ‘অপরাজিত’ ও ‘অপুর সংসার’ চলচ্চিত্রের সংগীত পরিচালনা। ১৯৬২ সালে তিনি কিন্নর স্কুল অব মিউজিক, বোম্বে এবং ১৯৬৭ সালে কিন্নর স্কুল অব মিউজিক স্থাপন করেন। পদ্মবিভূষণসহ নানা পুরস্কার ও সম্মানে তিনি ভূষিত হয়েছেন। ১২ ডিসেম্বর ২০১২ সালে তিনি মারা যান।

[উইকিপিডিয়া অবলম্বনে]

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা