kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ব্যক্তিত্ব

৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যক্তিত্ব

খান সারওয়ার মুরশিদ

শিক্ষাবিদ খান সারওয়ার মুরশিদের জন্ম ঢাকায় ১ জুলাই ১৯২৪ সালে। তাঁর বাবার নাম আলী আহমদ খান। বাড়িতেই শিক্ষানুকূল পরিবেশে তিনি প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জর্জ হাই স্কুল থেকে ১৯৩৯ সালে তিনি প্রবেশিকা পাস করেন। ফেনী সরকারি কলেজ থেকে এফএ পাস করে কিছুদিন কুমিল্লার ভিক্টোরিয়া কলেজে পড়াশোনা করেন এবং পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগ থেকে ১৯৪৮ সালে এমএ ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন গণ-আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের নেপথ্য রূপকার হিসেবে কাজ করেন। আজীবন তাঁর পেশা ছিল শিক্ষকতা। ১৯৪৮ সালে ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ দেন। ১৯৪৯ সালে ইংরেজি ত্রৈমাসিক ‘নিউ ভ্যালুজ’-এর গোড়াপত্তন। অভিজাত শ্রেণির এ পত্রিকাটি ১৯৬৬ সালে বন্ধ হয়ে যায়। কিছুদিন পরে ব্রিটেনের নটিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ে যান পিএইচডি গবেষণার জন্য। তাঁর গবেষণার বিষয় ছিল—ইয়েটস, হাক্সলে এবং এলিয়টের ওপর রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রভাব। ১৯৪৭ সালে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার কিছু পর ইংরেজি ত্রৈমাসিক পত্রিকা নিউ ভ্যালুজ প্রকাশনা করে তিনি দেশের বিদ্বৎসমাজের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং পোল্যান্ডে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের চেয়ারম্যানেরও দায়িত্ব পালন করেছেন। তাঁর একমাত্র গ্রন্থ ‘কালের কথা’ ২০০৪ সালে প্রকাশিত হয়। তিনি বাংলা একাডেমি পুরস্কারসহ নানা পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। ৮ ডিসেম্বর ২০১২ সালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

[উইকিপিডিয়া অবলম্বনে]

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা