kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ব্যক্তিত্ব

১০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যক্তিত্ব

মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমা

আইনজীবী, রাজনীতিক ও পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির প্রতিষ্ঠাতা মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার জন্ম রাঙামাটিতে ১৫ সেপ্টেম্বর ১৯৩৯ সালে। তিনি ১৯৫৮ সালে রাঙামাটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে প্রবেশিকা এবং চট্টগ্রাম সরকারি কলেজ থেকে ১৯৬৩ সালে বিএ পাস করেন। ১৯৬৮ সালে কুমিল্লা টিচার্স ট্রেনিং কলেজ থেকে বিএড এবং ১৯৭০ সালে চট্টগ্রাম আইন কলেজ থেকে এলএলবি ডিগ্রি লাভ করে তিনি আইন পেশায় নিয়োজিত হন। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি রাজনৈতিক আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। ১৯৬০ সালে কাপ্তাই হাইড্রোইলেকট্রিক প্রজেক্ট বাস্তবায়নের ফলে অসংখ্য পাহাড়ি পরিবার তাদের জমিজমা ও বসতবাড়ি থেকে উৎখাত হয়। তিনি তাদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দান ও পুনর্বাসন আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন। ১৯৬৩ সালে পূর্ব পাকিস্তান জননিরাপত্তা অর্ডিন্যান্সের অধীনে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। ১৯৬৫ সালের ৮ মার্চ কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে তিনি জুমিয়া সমাজকে রাজনৈতিকভাবে সচেতন করার কাজে আত্মনিয়োগ করেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে তিনি ১৯৭০ সালে পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি জুমিয়া জাতীয়তাবাদের স্বীকৃতির দাবি জানান এবং এ উদ্দেশ্যে ১৯৭২ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি গঠন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি। ১৯৭৩ সালে তিনি জনসংহতি সমিতির পক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম-১ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে পাহাড়ি জনগণের অধিকার আদায় সম্ভব না হওয়ায় তিনি জুমিয়া জনগণের স্বতন্ত্র পরিচিতি অক্ষুণ্ন রাখতে সশস্ত্র সংগ্রামের পথ বেছে নেন। ১৯৭৩ সালে জনসংহতি সমিতির পৃষ্ঠপোষকতায় গড়ে ওঠে শান্তিবাহিনী। ১৯৮৩ সালের ১০ নভেম্বর তিনি আততায়ীর হাতে নিহত হন। 

[বাংলাপিডিয়া অবলম্বনে]

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা