kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ব্যক্তিত্ব

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যক্তিত্ব

রমা চৌধুরী

একাত্তরের জননী ও বিশিষ্ট লেখিকা রমা চৌধুরীর জন্ম চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে ১৪ অক্টোবর ১৯৪১ সালে। তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে নির্যাতিত একজন বীরাঙ্গনা। ১৯৬১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। বলা হয়ে থাকে, তিনি দক্ষিণ চট্টগ্রামের প্রথম নারী স্নাতকোত্তর। ১৯৬২ সালে কক্সবাজার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে তিনি প্রধান শিক্ষিকার দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে কর্মজীবন শুরু করেন। পরে দীর্ঘ ১৬ বছর তিনি বিভিন্ন উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষিকার দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে তিনি তিন পুত্রসন্তানের জননী। থাকতেন পৈতৃক ভিটা পোপাদিয়ায়। তাঁর স্বামী ভারতে চলে যান। ১৩ মে সকালবেলা পাকিস্তানি হানাদাররা এসে চড়াও হয় তাঁর ঘরে। তাঁকে জোর করে নিয়ে যায় পাশের নির্জন ঘরে। হারান সম্ভ্রম। সন্তানের মায়ায় আত্মহনন থেকে নিবৃত্ত থাকলেও মানসিক কষ্ট বয়ে বেড়ান। ঘরবাড়িহীন বাকি আটটি মাস তিনটি শিশুসন্তান আর বৃদ্ধ মাকে নিয়ে জলে-জঙ্গলে তাঁকে লুকিয়ে বেড়াতে হয়েছে। স্বাধীনতার পরে তিনি লেখ্যবৃত্তিকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করেন। প্রথমে একটি পাক্ষিক পত্রিকায় লিখতেন। বিনিময় সম্মানীর বদলে পত্রিকার ৫০টি কপি পেতেন। সেই পত্রিকা বিক্রি করেই চলত তাঁর সংসার। পরে নিজেই নিজের লেখা বই প্রকাশ করে বই ফেরি করতে শুরু করেন। তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ—একাত্তরের জননী, ১০০১ দিনযাপনের পদ্য, আগুন রাঙা আগুন ঝরা অশ্রুভেজা একটি দিন, ভাববৈচিত্র্যে রবীন্দ্রনাথ প্রভৃতি। ২০১৮ সালের ৩ সেপ্টেম্বর তিনি মারা যান।

[উইকিপিডিয়া অবলম্বনে]

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা