kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ব্যক্তিত্ব

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যক্তিত্ব

জীবন ঘোষাল

জীবন ঘোষালের জন্ম চট্টগ্রামের সদরঘাটে ২৬ জুন ১৯১২ সালে। তাঁর প্রকৃত নাম মাখনলাল। তাঁর বাবার নাম যশোদা ঘোষাল। তিনি ছিলেন ভারত উপমহাদেশের ব্রিটিশবিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের অন্যতম ব্যক্তিত্ব। ছাত্রাবস্থায় ১৮ এপ্রিল ১৯৩০ সালে চট্টগ্রাম অস্ত্রাগার লুণ্ঠনের কার্যক্রমে তিনি অংশগ্রহণ করেন। পরে তৎকালীন নোয়াখালী জেলার ফেনী রেলস্টেশনে ধরা পড়ে পুলিশ হাজত থেকে পালিয়ে গিয়ে আত্মগোপন করেন। মাস্টারদা সূর্য সেনের নেতৃত্বে সংঘটিত বিদ্রোহের অন্যতম নায়ক ছিলেন তিনি। তাঁদের এই বিদ্রোহ শোষণ-বঞ্চনার আঁধারে ঢাকা ভারতবাসীকে সূর্যোদয়ের স্বপ্ন দেখিয়েছিল। ভারতের মুক্তিকামী মানুষের জন্য উদাহরণ সৃষ্টির করতে কিছুদিনের জন্য হলেও চট্টগ্রামকে ব্রিটিশদের হাত থেকে মুক্ত করতে এক অসম দুঃসাহসী লড়াইয়ের পরিকল্পনা করে চট্টগ্রামের বিদ্রোহীরা। চট্টগ্রামের সঙ্গে সব যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করার মধ্য দিয়ে ১৮ এপ্রিল বিদ্রোহ শুরু হয়। রেললাইনের ফিশপ্লেট খুলে রেখে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, টেলিগ্রাফ ও টেলিফোন অফিস পুড়িয়ে দেওয়া হয়। প্রয়োজনীয় অস্ত্র সংগ্রহের জন্য চট্টগ্রাম পুলিশ লাইনস এবং কেন্দ্রীয় অস্ত্রাগারে হামলা চালায় বিপ্লবীরা। তিনি পুলিশের অস্ত্রাগার দখলের জন্য গঠিত দলে ছিলেন। তাঁর দল সফলভাবে তাদের দায়িত্ব পালন করতে সমর্থ হয়। এ সময় অতিরিক্ত অস্ত্রশস্ত্র ধ্বংসের জন্য আগুন লাগাতে গেলে হিমাংশু সেন আহত হন। তাঁকে নিরাপদে রেখে আসতে তিনি ও তাঁর সঙ্গীরা শহরে গেলে মূল দল থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন। পরে পুলিশ বাহিনীর সঙ্গে চন্দননগরে এক সশস্ত্র সংঘর্ষে তিনি আহত হন এবং ১ সেপ্টেম্বর ১৯৩০ সালে মারা যান।

[উইকিপিডিয়া অবলম্বনে]

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা