kalerkantho

শনিবার । ১০ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১

যুবাদের যথাযথ যত্ন নিন

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভাষার মাসে বিশ্বকাপ আনল বাংলাদেশে; ৯ ফেব্রুয়ারি বিশ্বকাপ অর্জনের সঙ্গে সঙ্গে অর্জিত হয়েছে আরো কিছু বিষয়। এক. বাংলাদেশ বিশ্বজয় করতে জানে; বিশ্বের কাছে তা প্রমাণিত হলো। দুই. বাংলাদেশের মানুষ কঠিন অবস্থায় ঘুরে দাঁড়াতে জানে। তিন. ঠাণ্ডা মাথায় বড় কাজ করার ক্ষমতা রাখে বাংলাদেশ। কারণ যুব অধিনায়ক বিপর্যয়ের সময় ব্যাটিং করতে নেমে ঠাণ্ডা মাথায় শেষ পর্যন্ত খেলে দেশকে উপহার দিয়েছেন বিশ্বকাপ এবং বিশ্বকে দেখিয়েছেন, বাংলাদেশিরা কত নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেন। চার. যুবারা প্রমাণ করেছেন বাংলাদেশিরা নির্ভীক। তাঁরা ভারত বা অস্ট্রেলিয়া কাউকেই পরোয়া করেন না। এখানেই শেষ বা পরিতৃপ্ত হয়ে না যায় সে জন্য দায়িত্বশীলদের অনুরোধ করব, তাঁদের যথাযথ যত্ন নিন। বিভিন্ন সময় জাতীয় বা আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় আমাদের অনেক কিশোর-তরুণ চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন, সে সময় তাঁদের বাহবা দেওয়া হয়েছে এবং তাঁদের নিয়ে অনেক আলোচনাও হয়েছে; কিন্তু এখন তাঁদের খুঁজে পাওয়া কষ্টকর। সফলতা অর্জন করলেও ধারাবাহিকতার অভাবে খেলার মাঠে প্রতিভাবান কিশোর-তরুণদের উপস্থিতি সামান্য। বিশ্বজয়ী যুবাদের বেলায় এমনটা যেন না হয় সেটাই আশা করব। যুবাদের সাফল্যে ধারাবাহিকতা থাকুক, তাঁরা আরো শক্তিশালী হয়ে জাতীয় দলে সুযোগ পেয়ে জাতীয় দলকেও বিশ্বকাপ জিতিয়ে দিক—এমনটাই আশা করছে দেশবাসী।

আব্দুল্লাহ মুহাম্মাদ যুবায়ের

কল্যাণপুর, ঢাকা।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা