kalerkantho

শনিবার । ২৫ জানুয়ারি ২০২০। ১১ মাঘ ১৪২৬। ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

পরিবেশদূষণ বন্ধে চাই জনসচেতনতা

৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



পরিবেশদূষণ হয় ব্যক্তি কর্তৃক। যেমন—গাড়ির কালো ধোঁয়া; বেশির ভাগ গাড়ি ব্যক্তি মানুষের। আর কলকারখানার বর্জ্য ও ইটভাটায়। সবই কিন্তু ব্যক্তি মানুষের। আমরা অনেকটাই জেনেশুনে পরিবেশ দূষণ করছি। পার্শ্ববর্তী দেশের অবস্থা দেখেও আমাদের বোধোদয় হচ্ছে না। পরিবেশকে সুন্দর রেখেও সব কাজ হতে পারে। কলকারখানায় ইটিপি নেই। কেন নেই সেটা কেউ দেখার নেই। পরিবেশ আইন মানা হয় না। যারা মানে না তাদের কেউ ধরছে না। রাষ্ট্র পরিবেশদূষণকারীদের বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে পুরোপুরি ব্যর্থ। সামগ্রিকভাবে পরিবেশ আজ ভয়ানক হুমকির মুখে। টক শো, সভা, সেমিনারে পরিবেশ নিয়ে যত কথা হয়, তার ১ শতাংশও কাজ হচ্ছে না। বুড়িগঙ্গায় প্রায় ২০০ স্যুয়ারেজ লাইন গিয়ে পড়েছে। এর মধ্যে ওয়াসার লাইনও আছে। তারা তা আদালতে স্বীকারও করেছে। ভাবা যায়! সরকারি সংস্থা পরিবেশ দূষণ করে? আবার স্বীকারও করে নেয়। ব্যক্তির সচেতনতার পাশাপাশি সরকারের কার্যকর তৎপরতা দরকার। তাহলেই পরিবেশ বাঁচবে। পরিবেশ নিয়ে এই মুহূর্ত সবচেয়ে বেশি দরকার কাজ।

মুহাম্মদ শফিকুর রহমান

বানারীপাড়া, বরিশাল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা