kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মূল্যবোধের অবক্ষয়ের কারণে শিশুরা অনিরাপদ

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পরিবার ও সমাজে সবচেয়ে দুর্বল হলো শিশুরা। শিশুরা কোনো অন্যায়ের প্রতিবাদ বা প্রতিরোধ করতে পারে না। এ কারণেই তারা একদিকে যেমন নিষ্পাপ, তেমনি অসহায়। তাদের বেঁচে থাকা, বড় হয়ে ওঠা এবং তাদের সব চাহিদা পূরণের দায়িত্ব পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রের। নিরাপত্তার দিক দিয়ে শিশুরা পুরোপুরিভাবেই মা-বাবা, পরিবার এবং সমাজের ওপর নির্ভরশীল। মা-বাবা ও পরিবারকেই শিশুরা সবচেয়ে আপন ও নিরাপদ মনে করে। অথচ আমাদের পারিবারিক, সামাজিক ও মানবিক মূল্যবোধের চরম অবক্ষয়ের কারণেই শিশুরা পরিবার ও সমাজে সবচেয়ে বেশি অনিরাপদ হয়ে পড়ছে। একের পর এক শিশু নির্যাতন, হত্যা ও ধর্ষণের মতো জঘন্য অপরাধপ্রবণতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। অন্যের দ্বারাই নয়, বরং সবচেয়ে আপন মা-বাবার দ্বারাও শিশুরা নির্যাতিত ও নিহত হচ্ছে। সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে বাবা-চাচার দ্বারা মাত্র সাড়ে পাঁচ বছরের শিশু তুহিনকে অত্যন্ত নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করা হয়েছে। এ যেন নিজের নাক কেটে পরের যাত্রা ভঙ্গের মতো অবস্থা। এই নিষ্ঠুর হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে সৃষ্টির সেরা জীব হিসেবে মানুষের নিষ্ঠুরতা ও অমানবিকতার এক জঘন্য নজির সৃষ্টি হলো। আমাদের দেশে শিশু নির্যাতন ও হত্যা এটাই প্রথম নয়, হয়তো শেষও নয়। তবে এই নিষ্ঠুরতা আর চলতে দেওয়া যায় না। হত্যা, ধর্ষণ ও নির্যাতনের হাত থেকে আমাদের শিশুদের রক্ষা করতেই হবে। এর জন্য সমাজের সর্বস্তরে মূল্যবোধ সৃষ্টির উপায় খুঁজতে হবে। মানহীন ও মূল্যবোধহীন শিক্ষাব্যবস্থাও সমাজে মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। সামাজিক ও সাংস্কৃতিক আন্দোলনের মধ্য দিয়েই পরিবার ও সমাজে মূল্যবোধ ফিরিয়ে আনতে হবে। মূল্যবোধ সমন্বিত সুশৃঙ্খল ও মানসম্মত শিক্ষাব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। এই সমস্যাকে সব রাজনীতির ঊর্ধ্বে রাখতে হবে, কারণ শিশু নির্যাতন একটি জাতীয় সমস্যা। অতীতের উদাহরণ দিয়ে রাজনৈতিক দলগুলো নিজেদের দায় না এড়িয়ে বরং জনসচেতনতা সৃষ্টিতে এগিয়ে আসা উচিত। শুধু ক্ষমতায় থাকা আর ক্ষমতায় যাওয়াই রাজনৈতিক দলের উদ্দেশ্য নয়। দেশের যেকোনো সমস্যা সমাধানে ভূমিকা রাখাও তাদের কাজ। কাজেই দেশের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ সমাজের সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে সঙ্গে নিয়েই সামাজিক আন্দোলন দরকার। শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে দেশের গণমাধ্যমও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

বিপ্লব বিশ্বাস

ফরিদপুর।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা