kalerkantho

রংপুর শহরে শব্দদূষণ

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রংপুর শহরে শব্দদূষণ

রংপুর বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তর জেলা। এটি বাংলাদেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ নগরী। এখানে নিত্য উন্নয়ন ঘটছে, পাল্লা দিয়ে বাড়ছে শব্দদূষণের মতো সমস্যা। শহরের বিভিন্ন স্থানে শব্দদূষণের মাত্রা নির্ধারিত মাত্রার চেয়েও দ্বিগুণ বা তিনগুণ বেশি। সবচেয়ে বেশি শব্দদূষণ হয় রংপুর বাস টার্মিনালে। যেখানে শব্দের মান সর্বোচ্চ ১৩২.৩৬ ডেসিবল এবং কম দূষণের শিকার কামাল কাছনা, গুঞ্জন মোড়, যেখানে শব্দদূষণের মান ৯০.৫ ডেসিবল। নীরব এলাকার মধ্যে অপেক্ষাকৃত বেশি শব্দদূষণ হয় ডিসি অফিস, কাচারি বাজার এলাকায়; যেখানে সর্বোচ্চ শব্দের মান ১১৬.৩ ডেসিবল এবং সর্বনিম্ন মান ৩৯.৯ ডেসিবল ও অপেক্ষাকৃত কম দূষণ হয় তাজহাট রাজবাড়ী এলাকায়। শব্দ সৃষ্টিতে যানবাহনের মধ্যে এগিয়ে আছে মোটরসাইকেল, যা প্রায় ১৫ শতাংশ শব্দদূষণের জন্য দায়ী। রংপুরের টাইলস, রড, থাই এবং অ্যালুমিনিয়াম কাটিং মেশিন ও নির্মাণসামগ্রী ওঠা-নামানোর মেশিন বেশি শব্দদূষণ করে। শব্দদূষণ রোধে শব্দদূষণ (নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা ২০০৬, আমদানি নীতি আদেশ ২০১৫-২০১৮, বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন ১৯৯৫, স্থানীয় সরকার আইন ২০০৯, মোটরযান আইন ১৯৮৮, সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ রয়েছে। কিন্তু শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সমন্বিত এবং অংশীদারিমূলক কর্মসূচির জরিপ মতে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণ আইন প্রয়োগ নেই। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

আহমদ কামরুজ্জমান মজুমদার

স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদে

মন্তব্য