kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

কর্ণফুলীকে বাঁচান

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



চট্টগ্রামের প্রাণ কর্ণফুলী নদী এখন লাইফ সাপোর্টে আছে। ক্ষমতাসীনদের প্রভাবে অবৈধভাবে দখল করে নদী ভরাট করে নদীর পাশে গড়ে তোলা হয়েছে একের পর এক অবৈধ স্থাপনা। ফলে নদীটি মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছে। হাইকোর্টের নির্দেশে মাননীয় ভূমিমন্ত্রী উচ্ছেদ অভিযান শুরু করলেও বাস্তবে তা ছিল লোকের চোখে ধুলা দেওয়া। রাঘব বোয়ালদের স্থাপনাগুলো বহাল তবিয়তেই আছে। কিছু চুনোপুঁটির ঘরবাড়ি উচ্ছেদ করা হয়, যা পরে আবার গড়া হয়েছে। উচ্ছেদ অভিযানে সাধারণ মানুষ আশায় বুক বেঁধেছিল—এবার হয়তো কর্ণফুলী ভূমিদস্যুদের কবল থেকে রক্ষা পাবে। না, হলো না। কী এক অজুহাতে অভিযান বন্ধ করে দেওয়া হয়। কর্ণফুলীর দুই পার দখল হচ্ছ ক্রমেই। এ ছাড়া শিল্প-কারখানার দূষিত রাসায়নিক বর্জ্য প্রবাহিত হয় নদীতে। একসময় কর্ণফুলীর পানিতে ডলফিন দেখা গেলেও এখন আর চোখে পড়ে না। নদী নাব্য হারিয়েছে। জাহাজ চলাচলেও বিঘ্ন ঘটছে। নাব্য ফিরিয়ে আনতে কার্যকর ড্রেজিং এবং দুই ধারের সব অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করা জরুরি। হাইকোর্টের রায়কে বাস্তবায়ন করুন। কর্ণফুলীকে বাঁচান। কর্ণফুলী বাঁচলে বাঁচবে চট্টগ্রাম।

সিরাজুল মুস্তফা, চট্টগ্রাম।

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা