kalerkantho

ভোলা-লক্ষ্মীপুর নৌ রুটে সমস্যা

২৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভোলা-লক্ষ্মীপুর নৌ রুটে সমস্যা

চট্টগ্রামের সঙ্গে বাংলাদেশের বৃহত্তম দ্বীপ ভোলার সম্পর্ক সুদীর্ঘকালের। প্রমত্তা মেঘনার দুকূল ভাঙনের মাধ্যমে ভোলা-লক্ষ্মীপুরের নৌ দূরত্ব বেড়ে যাওয়ায় এটাকে বরিশালের অন্তর্ভুক্ত করা হয়। বহুকাল ধরেই ভোলার অসংখ্য মানুষ ভোলা-লক্ষ্মীপুর নৌপথ পাড়ি দিয়ে চট্টগ্রামে গিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য, চাকরি এবং শ্রমজীবী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। চট্টগ্রাম শহরে ভোলার বাসিন্দা দুই লক্ষাধিক। এই বিপুল মানুষের চট্টগ্রাম-ভোলা যাতায়াতের একমাত্র পথ ভোলা-লক্ষ্মীপুর নৌপথ। এই পথে অন্য জেলার মানুষও চলাফেরা করে থাকে। সময় ও পরিবেশ বদলে যাওয়ায় এখানে অনেক সমস্যা তৈরি হয়েছে। ফলে সব শ্রেণির মানুষের যাতায়াতে সমস্যা হচ্ছে। নানা ধরনের দরকারি বিষয়ে উদ্বোধন হলেও যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় সেবার মান পিছিয়ে গেছে। অনতিবিলম্বে এলাকার মজু চৌধুরী ঘাট থেকে মতির ঘাটে বা মজু চৌধুরী খালের মুখে ঘাটটি স্থাপন করা জরুরি হয়ে পড়েছে। ঘাটটিকে নদী বন্দর হিসেবে কার্যকর করতে ব্যবস্থা নিতে হবে। ভোলা-লক্ষ্মীপুর রুটে ক্যাপিটালের ব্যবস্থা নিয়ে মেয়াদোত্তীর্ণ সি ট্রাকগুলোর পরিবর্তে নতুন ট্রাক নামানোর ব্যবস্থা করতে হবে। বিআইডাব্লিউটিএ লঞ্চ মালিক সমিতির সঙ্গে যোগাযোগ করে বে-ক্রসিং সনদধারী লঞ্চের ব্যবস্থা চালু এবং বিভিন্ন জলযানের ভাড়া বিধি মোতাবেক আদায়ের ব্যবস্থা করতে হবে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণের জন্য বিনীত আবেদন করছি।

এম জহিরুল আলম

ভোলা ডেভেলপমেন্ট ফোরাম, ভোলা।

মন্তব্য