kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

প্রতি ১১ মিনিটে স্বজনের হাতে খুন এক নারী

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৪ নভেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রতি ১১ মিনিটে স্বজনের হাতে খুন এক নারী

বিশ্বে প্রতি ১১ মিনিটে একজন নারী ও কম বয়সী মেয়ে তার অন্তরঙ্গ সঙ্গী বা পরিবারের সদস্যদের দ্বারা নিহত হয় বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘের প্রধান আন্তোনিও গুতেরেস। আগামীকাল ২৫ নভেম্বর পালিত হবে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ দিবস। এই দিনটিকে সামনে রেখে দেওয়া এক বার্তায় তিনি এ তথ্য জানান।

গত সেপ্টেম্বরে প্রকাশিত জাতিসংঘের ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার অগ্রগতি : জেন্ডার স্ন্যাপশট ২০২২’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২১ সালে বিশ্বজুড়ে ১৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সী প্রতি ১০ জন নারী ও কম বয়সী মেয়ের মধ্যে একজন অন্তরঙ্গ সঙ্গীর দ্বারা যৌন বা শারীরিক সহিংসতার শিকার হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

প্রতিবেদনে বলা হয়, নারীর প্রতি সহিংসতার মতো কারণে লিঙ্গ সমতা অর্জনে আরো ২৮৬ বছর প্রয়োজন।

নারীর প্রতি সহিংসতার অবসানে এই আন্তর্জাতিক দিবসের এবারের প্রতিপাদ্য, ‘নারী ও কম বয়সী নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতা বন্ধে সক্রিয় হোন’।

২০২৬ সালের মধ্যে নারী অধিকার সংগঠন এবং আন্দোলনের তহবিল ৫০ শতাংশ বাড়ানোর জন্য বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আন্তোনিও গুতেরেস। নারীদের প্রতি অনলাইনে লাঞ্ছনা ও সাইবার অপরাধের ক্রমবর্ধমান হুমকির কথাও তিনি তুলে ধরেন এবং আন্তর্জাতিক নেতাদের নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে সক্রিয় পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানান।

গুতেরেস বলেন, ‘নারী ও কম বয়সী মেয়েরা অনলাইনে ব্যাপক সহিংসতার শিকার হয়। যেমন—অশ্লীল কটূক্তি, যৌন হয়রানি ও ছবির অপব্যবহার। নারী ও কম বয়সী মেয়েদের বিরুদ্ধে সহিংসতাকে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি মানবাধিকার লঙ্ঘন হিসেবে বর্ণনা করে জাতিসংঘের প্রধান আরো বলেন, ‘বিশ্বের অর্ধেক মানুষকে এই বৈষম্য, সহিংসতা ও নির্যাতনের জন্য একটি বড় মূল্য দিতে হয়। ’

নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে সম্মিলিত পদক্ষেপের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এখন সময় এসেছে পরিবর্তনশীল পদক্ষেপের, যা নারী ও মেয়েদের প্রতি সহিংসতার অবসান ঘটাবে। ’

সহিংসতা বন্ধে জাতিসংঘের প্রধান সিদ্ধান্ত গ্রহণের প্রতিটি পর্যায়ে তৃণমূল ব্যক্তিত্ব ও সুশীল সমাজেকে অন্তর্ভুক্ত করার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন। তাদের ন্যায়বিচার এবং সমর্থনের অধিকার নিশ্চিত করার জন্য আইন বাস্তবায়ন করা এবং পিতৃতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে চ্যালেঞ্জ করে এমন প্রচারাভিযানের কথা বলেন। গুতেরেস বলেন, ‘আসুন আমরা গর্ব করে বলি, আমরা সবাই নারীবাদী। ’ সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

 



সাতদিনের সেরা