kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৯ নভেম্বর ২০২২ । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সাফ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপজয়ী

নিজ এলাকায় শুভেচ্ছায় ভাসলেন ফুটবলকন্যারা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



নিজ এলাকায় শুভেচ্ছায় ভাসলেন ফুটবলকন্যারা

সাফ ফুটবল জয়ী সানজীদা, মারিয়া মান্দা, মার্জিয়া, তহুরা, সাজেদা, শিউলী আজিম, শামসুন্নাহার সিনিয়র ও শামসুন্নাহার জুনিয়রকে গতকাল ময়মনসিংহে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

ঢাকায় বিপুল সংবর্ধনা পেয়ে সিক্ত ছিলেন সাফজয়ী নারী ফুটবলাররা। এবার নিজ নিজ জেলা-উপজেলায় জমকালো সংবর্ধনা, অভ্যর্থনা পেলেন তাঁদের ১৬ জন। অন্যদেরও সংবর্ধনা দেওয়ার আয়োজন চলছে।

ময়মনসিংহে প্রাণঢালা সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে জেলার ধোবাউড়ার কলসিন্দুর গ্রামের সাফজয়ী বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের আট সদস্যকে।

বিজ্ঞাপন

গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা থেকে কলসিন্দুরে ফেরার পথে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মাধ্যমে তাঁদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এ ছাড়া রাঙামাটিতে পাঁচ ও সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে এক সাফজয়ী ফুটবলারকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। মাগুরায় দুই ফুটবল কন্যাকে ফুল ও মিষ্টিমুখ করিয়ে বরণ করে নিয়েছে এলাকাবাসী।

ময়মনসিংহে প্রাণঢালা সংবর্ধনা

ময়মনসিংহে সংবর্ধিতরা হলেন সানজিদা আক্তার, মারিয়া মান্দা, শিউলি আজিম, মারজিয়া আক্তার, শামছুন নাহার সিনিয়র, তহুরা আক্তার, সাজেদা আক্তার ও শামছুন নাহার জুনিয়র। স্থানীয় শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন পার্কের বৈশাখী মঞ্চে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজক ছিল জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। সহযোগিতায় ছিল জেলা প্রশাসন। অনুষ্ঠানে আট নারী ফুটবলারের হাতে ক্রেস্ট ও উপহার হিসেবে নগদ টাকা তুলে দেওয়া হয়। এর আগে তাঁদের জেলার ভালুকা ও ত্রিশালে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। ময়মনসিংহে বিভাগীয় কমিশনার শফিকুর রেজা বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ। প্রতিমন্ত্রী আট নারী ফুটবলারকে ২৫ হাজার টাকা করে উপহার দেন। জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে এক লাখ টাকা এবং প্রান্ত ডায়াগনস্টিক সেন্টারের পক্ষ থেকে এক লাখ টাকা উপহার দেওয়া হয়।

সংবর্ধনায় যোগ দিতে ময়মনসিংহ থেকে পাঠানো মাইক্রোবাসে গতকাল ভোরে ঢাকা থেকে রওনা দেন আট নারী ফুটবলার। পরে চুরখাই এলাকায় তাঁদের স্বাগত জানান জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তারা। এর পর সুসজ্জিত খোলা পিকআপে খেলোয়াড়রা ময়মনসিংহ নগরে প্রবেশ করেন। সার্কিট হাউসে যাওয়ার পথে লোকজন তাঁদের হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানায়।

পাঁচ পার্বত্য কন্যাক বীরোচিত সংবর্ধনা

সাফজয়ী পাঁচ পার্বত্য কন্যা রুপনা চাকমা, ঋতুপর্ণা চাকমা, মনিকা চাকমা, আনাই মগিনী ও আনুচিং মগিনীকে ফুল সজ্জিত খোলা গাড়িতে রাঙামাটি শহর ঘুরিয়ে এনে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। বিকেলে শহরের চিং হ্লা মং চৌধুরী মারি স্টেডিয়ামে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রায় ২০০ মোটরসাইকেল ও অর্ধশতাধিক অন্য গাড়িবহর যখন পাঁচ ফুটবলারকে নিয়ে শহরে প্রবেশ করে, তখন যেন উৎসবের আমেজে রঙিন হয়ে ওঠে রাঙামাটির নীল  আকাশ, সবুজ পাহাড়। সড়কের দুই পাশে শত শত মানুষ হাত নাড়িয়ে অভিনন্দন জানায় বাঘিনীদের। আয়োজক ছিল রাঙামাটি জেলা প্রশাসন ও জেলা পরিষদ।

সংসদীয় খাদ্য মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ, জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ, বিজিবি সেক্টর কমান্ডার, রাঙামাটি সেনা জোন, রাঙামাটি পৌরসভা, জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে খেলোয়াড়দের ক্রেস্ট ও ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

ভালোবাসায় সিক্ত আঁখি

জন্মভূমি সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন সাফজয়ী ফুটবলার আঁখি খাতুন। গতকাল দুপুরে আঁখি ঢাকা থেকে হাটিকুমরুল গোলচত্বরে পৌঁছালে উপজেলা প্রশাসন ও ক্রীড়া সংস্থা তাঁকে ফুল দিয়ে বরণ করে। এরপর হুডখোলা গাড়িতে আঁখিকে নিয়ে বিশাল গাড়িবহর যাত্রা করে। বহর উপজেলা চত্বরে পৌঁছলে স্থানীয় সংসদ সদস্য মেরিনা জাহান কবিতা ও উপজেলা প্রশাসন তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। এরপর উপজেলা মিলনায়তনে প্রশাসন ও ক্রীড়া সংস্থা আয়োজিত সংবর্ধনায় তাঁকে ক্রেস্ট প্রদান ও মিষ্টিমুখ করানো হয়। অনুষ্ঠানে আঁখির বাবা আকতার হোসেন বলেন, ‘বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ চালু হয়েছিল বলেই আজ আঁখির সৃষ্টি হয়েছে। সামাজিকভাবে ও প্রতিবেশীদের দ্বারা বহু প্রতিবন্ধকতার মধ্য দিয়ে আঁখিকে যেতে হয়েছে। বহু মানুষের উপহাস ও কটাক্ষের শিকার হতে হয়েছে। ’

মেরিনা জাহান কবিতা বলেন, ‘আঁখি শাহজাদপুরকে ছাপিয়ে পৃথিবীর সন্তান হয়ে উঠেছে। সে এখন নারীদের কাছে অনুপ্রেরণা। ’ এ সময় তিনি আঁখির জন্য এক লাখ টাকা উপহার ঘোষণা করেন।

মাগুরায় দুজনকে অভ্যর্থনা

সাফজয়ী দুই কৃতী ফুটবলার ইতি রানী মণ্ডল ও সাথী বিশ্বাসকে মাগুরায় ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করেছে তাঁদের নিজ গ্রাম গোয়ালদাহের সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী। গোয়ালদাহে শিক্ষার্থীরা আনন্দ মিছিল করে। গ্রামবাসী ইতি-সাথীকে ফুলের মালা পরিয়ে দিয়ে মিষ্টিমুখ করায়।

[প্রতিবেদনে তথ্য দিয়েছেন কালের কণ্ঠের নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ, রাঙামাটি, মাগুরা, সিরাজগঞ্জ, শাহজাদপুর ও ভালুকা প্রতিনিধি]

সাফজয়ী রংপুরের সিরাত জাহান স্বপ্না, ঠাকুরগাঁওয়ের সোহাগী কিসকো ও স্বপ্না রানীকে গতকাল রংপুর টাউন হল মাঠে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান জেলা প্রশাসক আসিব আহসান।     ছবি : কালের কণ্ঠ



সাতদিনের সেরা