kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৬ আগস্ট ২০২২ । ১ ভাদ্র ১৪২৯ । ১৭ মহররম ১৪৪৪

চট্টগ্রামে মাইক্রোবাসে ট্রেনের ধাক্কা

আরো এক ছাত্রের মৃত্যু, আরেকজন সংকটাপন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৬ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আরো এক ছাত্রের মৃত্যু, আরেকজন সংকটাপন্ন

চট্টগ্রামে ট্রেনের ধাক্কায় নিহত আয়াতের মায়ের আহাজারি। ছবি : কালের কণ্ঠ

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে মাইক্রোবাসকে ট্রেনের ধাক্কা দেওয়ার ঘটনায় আয়াত হোসেন নামের আরেক শিক্ষার্থী মারা গেছে। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল শুক্রবার দুপুর আড়াইটার দিকে তার মৃত্যু হয়।

আয়াত হোসেন (১৬) এবারের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। দুর্ঘটনার আট দিনের মাথায় আয়াতের মৃত্যু হলো।

বিজ্ঞাপন

এ নিয়ে এই দুর্ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১২ জনে। ওই দুর্ঘটনায় এখন চট্টগ্রামে আরো পাঁচজন চিকিৎসাধীন। এর মধ্যে তাসফির হাসান নামের এক শিক্ষার্থী হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম মেডিক্যালের আইসিইউ বিভাগের প্রধান অধ্যাপক হারুন অর রশিদ গতকাল কালের কণ্ঠকে বলেন, দুর্ঘটনার পর ২ আগস্ট থেকে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিল আয়াত। ৮ নম্বর শয্যায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর আড়াইটায় তার মৃত্যু হয়। আর আইসিইউয়ের ১ নম্বর শয্যায় চিকিৎসাধীন তাসফির লাইফ সাপোর্টে আছে।

এ ছাড়া ওই দুর্ঘটনায় হাসপাতালের ২৮ নম্বর নিউরোসার্জারি ওয়ার্ডে আরো চারজন চিকিৎসাধীন। দুর্ঘটনার সাত দিন পর মারা যাওয়া আয়াত হোসেন হাটহাজারী উপজেলার শিকারপুর ইউনিয়নের কেএস নজুনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। বাণিজ্য বিভাগ থেকে তার পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। তার মৃত্যুতে হাটহাজারীর খন্দকিয়া গ্রামে শোকের ছায়া নেমে আসে।

জানা যায়, আয়াত হোসেন ওই গ্রামের আবদুস শুক্কুরের ছেলে। তাঁর তিন ছেলের মধ্যে আয়াত দ্বিতীয়। আবদুস শুক্কুর পেশায় সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালক।

গ্রামের বাসিন্দা মোহাম্মদ সালাউদ্দিন জানান, গতকাল সন্ধ্যায় আয়াতের মরদেহ গ্রামের বাড়িতে নেওয়া হয়। রাতে স্থানীয় খন্দকিয়া গ্রামে ছমুদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে তার জানাজা হয়।

চমেক হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, দুই দিন ধরে আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন তাসরিফ হাসান। নিউরোসার্জারি ও আইসিইউ চিকিৎসকরা জানান, দুর্ঘটনায় ঘাড়ের আঘাতের কারণে তাসরিফের হাত, পা অবশ (প্যারালাইসিস) হয়ে গেছে। শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে পারছে না। এ ছাড়া ২৮ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছে হাটহাজারীর স্থানীয় এসবি মডেল স্কুলের এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী নাহিদুল আলম সৈকত, দুর্ঘটনাকবলিত মাইক্রোবাসের সহকারী তৌকির ইবনে শাওন, শিক্ষার্থী তানভীর হাসান হৃদয়, মোহাম্মদ মাহিন।

গত শুক্রবার দুপুরে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী আন্ত নগর ট্রেন মহানগর প্রভাতি মিরসরাই অতিক্রমকালে খৈয়াছড়া লেভেলক্রসিংয়ে একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে মাইক্রোবাসে থাকা ১৮ জনের মধ্যে ১১ জন প্রাণ হারান। এর মধ্যে চালকও রয়েছেন। আহত অপর সাতজনকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। এর মধ্যে মাইক্রোবাসের সহকারীও আছেন। আহত সাতজনের মধ্যে গত শনিবার বিকেলে ইমন নামে এক ছাত্র সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়ে বাড়ি গেছেন। বাকি ছয়জন চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এর মধ্যে গতকাল আয়াত হোসেন মারা যান।

হতাহতরা সবাই মাইক্রোবাসের যাত্রী। তাঁরা গত শুক্রবার সকালে হাটহাজারীর খন্দকিয়া গ্রামের একটি কোচিং সেন্টার থেকে শিক্ষাসফরে মিরসরাই ঝরনা দেখতে গিয়েছিলেন। আসার সময় লেভেলক্রসিংয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।



সাতদিনের সেরা