kalerkantho

শনিবার । ২০ আগস্ট ২০২২ । ৫ ভাদ্র ১৪২৯ । ২১ মহররম ১৪৪৪

জঙ্গি নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা প্রশংসিত

হলি আর্টিজানে হামলার ৬ বছর পূর্তিতে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ জুলাই, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে




জঙ্গি নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা প্রশংসিত

গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে সন্ত্রাসী হামলার ছয় বছর পূর্তিতে গতকাল সেখানে নিহতদের স্মরণে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান কূটনীতিকরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

‘হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলার ঘটনার পর যদি আমরা ঘুরে দাঁড়াতে না পারতাম তাহলে আজ যে পদ্মা সেতু দেখছি, যে মেট্রো রেল দেখছি, কোনো কিছুই বাস্তবায়ন করতে পারতাম না। তখন হয়তো দেশের চিত্রটা অন্যরকম হতো। নিরাপত্তাজনিত কারণে বিদেশি প্রকৌশলীরা ঝুঁকি নিয়ে বাংলাদেশে আসতে চাইতেন না। দেশে জঙ্গিবাদ অনেকটা নিয়ন্ত্রণের কারণে এখন আর বড় হামলার সক্ষমতা নেই জঙ্গিদের।

বিজ্ঞাপন

গতকাল শুক্রবার সকালে রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান হামলার ছয় বছর পূর্তি উপলক্ষে ‘দীপ্ত শপথ’ ভাস্কর্যে শহীদ পুলিশ সদস্যদের স্মরণে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর এসব কথা বলেন ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

এ সময় ঢাকায় মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস, র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন, নিহত পুলিশ কর্মকর্তা সালাহউদ্দীন খানের পরিবারসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

হলি আর্টিজানে হামলার সময় জিম্মিদের উদ্ধারে অভিযানে নিহত দুই পুলিশ কর্মকর্তার স্মরণে নির্মিত ‘দীপ্ত শপথ’ ভাস্কর্যে তাঁরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এ সময় পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন ও পুলিশ অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনও পৃথকভাবে শ্রদ্ধা জানায়।

ডিএমপি কমিশনার  আরো যা বললেন

শ্রদ্ধা জানানোর পর জঙ্গিবাদ দমনে পুলিশের অবদানের কথা তুলে ধরে ডিএমপি কমিশনার শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের বিস্তার আফগানফেরত মুজাহিদদের হাত ধরে। অর্থাৎ হরকাতুল জিহাদ ও জেএমবির উত্থানের মধ্য দিয়ে দেশে জঙ্গিবাদের শুরু। পরে ইরাকে যখন আইএসের উৎপাত শুরু হয় তখন বাংলাদেশের দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য বাংলাদেশের কিছু মানুষ তামিম চৌধুরীর নেতৃত্বে হলি আর্টিজানে হামলা করে। ’

তিনি বলেন, ‘এর পর জঙ্গি ও উগ্রবাদ দমনে বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়িয়েছে। সেই সময়কার জঙ্গিদের আস্তানা তছনছ করে দেওয়া হয়েছে। জঙ্গিবাদ দমনে বিভিন্ন সময় অভিযান চালিয়ে জঙ্গিদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই সফলতার পুরো ভাগীদার বাংলাদেশ। তবে আমার ভালো লাগছে যে, এসবের জন্য সক্ষমতা বৃদ্ধি, প্রশিক্ষণ ও সরঞ্জাম দিয়ে বাংলাদেশের পাশে থেকেছে যুক্তরাষ্ট্র। এসব সরঞ্জাম পাওয়ার পর চট্টগ্রাম থেকে শুরু করে সিলেট, মৌলভীবাজার এমনকি খুলনা বিভাগের কয়েকটি জেলাসহ আমরা পুরো জঙ্গি নেটওয়ার্ক তছনছ করে দিয়েছি। ’

তবে জঙ্গি দমনে আমরা আত্মতৃপ্তিতে ভুগি না জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘কারণ এখনো জঙ্গি তৎপরতা মাঝেমধ্যে চোখে পড়ছে। জঙ্গিদের সোশ্যাল মিডিয়ায় একটিভিটিসহ সব বিষয় আমরা মনিটরিং করছি। ’

র‌্যাব ডিজি যা বললেন

হলি আর্টিজান জঙ্গি হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ দমনে বাংলাদেশের সাফল্য ঈর্ষণীয়। আমরা যেভাবে জঙ্গিবাদ দমন করেছি সে ধারাবাহিকতা ধরেও রেখেছি। সাইবার জগতে আমরা জঙ্গি কার্যক্রমের বিষয়ে নজরদারি রাখছি। ’

তিনি বলেন, ‘এ পর্যন্ত আমরা ১৬ জন জঙ্গিকে ডি-রেডিক্যালাইজেশন করেছি। ১৬ জনকে আত্মসমর্পণ করিয়েছি। তাদের সঙ্গে আমরা সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছি, যাতে করে তারা আবার জঙ্গিবাদে জড়িয়ে না পড়ে। ’

র‌্যাবের ডিজি আরো বলেন, ‘হলি আর্টিজানের পর আমরা দেড় হাজারের বেশি জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করেছি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো মূল পরিকল্পনাকারী আমির সারোয়ার জাহান, অর্থায়ন ও পরিকল্পনার সঙ্গে জড়িত শরিফুল ইসলাম খালেক ও মামনুর রশিদ রিপন। ’ 

নিহতদের স্মরণ কূটনীতিকদের

গুলশানের হলি আর্টিজানে নিহতদের প্রতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের দূতরা। এর মধ্যে রয়েছেন, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী, জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি, ইতালির রাষ্ট্রদূত এনরিকো নুনজিয়াতা ও যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাস।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এটা খুবই মর্মান্তিক ঘটনা। বাংলাদেশ, ভারতসহ এ ঘটনায় যারা ভুক্তভোগী হয়েছে তাদের সবাইকে স্মরণ করছি। বাংলাদেশের বন্ধু হিসেবে আমরা খুবই ব্যথিত। এটা জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ, এ ধরনের ঘটনা কেন ঘটছে, কিভাবে ঘটছে। একসঙ্গে কাজ করে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঠেকানোর বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। ’

জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি বলেন, ‘ছয় বছর আগের হামলায় সাতজন জাপানি নাগরিক নিহত হয়েছেন, যাঁরা মেট্রো রেললাইন ওয়ান প্রকল্পের গবেষণায় নিয়োজিত ছিলেন। আমরা কখনোই তাঁদের ভুলব না। বাংলাদেশের সঙ্গে জাপানের গুরুত্বপূর্ণ দ্বিপক্ষীয় ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। ’

মার্কিন রাষ্ট্রদূত যা বললেন

হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস বলেন, ‘বাংলাদেশ জঙ্গিবাদ দমনে যে ভূমিকা দেখিয়েছে তা সত্যি প্রশংসার দাবিদার। হলি আর্টিজানে হামলা-পরবর্তী ছয় বছরে সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধ এবং দেশের মানুষকে নিরাপদ করতে বাংলাদেশে যে ব্যবস্থাগুলো নেওয়া হয়েছে, সে জন্য আমি তাদের অভিনন্দন জানাই। ’



সাতদিনের সেরা