kalerkantho

মঙ্গলবার । ৫ জুলাই ২০২২ । ২১ আষাঢ় ১৪২৯ । ৫ জিলহজ ১৪৪৩

ঈদের পোশাকের টাকা বানভাসিদের দিল স্কুলছাত্রী

বন্যার্তদের পাশে শিক্ষার্থীরা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঈদের পোশাকের টাকা বানভাসিদের দিল স্কুলছাত্রী

সিলেটের বানভাসি মানুষের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়েছে গোপালগঞ্জের তাহাজীব হাসান নামের এক স্কুলছাত্রী। আসন্ন ঈদের পোশাক না কিনে সেই টাকা সে দিয়েছে বন্যার্তদের। গতকাল বুধবার সে গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানার কাছে ১০ হাজার টাকা তুলে দেয়। পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলার আমান উল্লাহ কলেজের ২৫ শিক্ষার্থী মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে অর্থ সংগ্রহ করে সিলেটের দুর্গত মানুষের জন্য পাঠিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গোপালগঞ্জের সরকারি বীণাপাণি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী তাহাজীব দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি আমিনুল হাসানের মেয়ে। তাহাজীব বলে, ‘কোরবানির ঈদের ড্রেস কেনার টাকা সিলেটের বন্যার্তদের জন্য দিতে পেরে আমার খুব ভালো লাগছে। প্রতিবছরই ঈদের সময় নতুন ড্রেস কিনে থাকি। কিন্তু এবার আমার মনে হয়েছে, ড্রেস কেনার চেয়ে সিলেটে ভয়াবহ বন্যায় বানভাসি মানুষের পাশে দাঁড়ানো জরুরি। তাই আমার ড্রেসের টাকা প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে জমা দিলাম। ’

জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা বলেন, ‘আমি খুব খুশি হয়েছি যে একজন শিক্ষার্থী তার আনন্দের টাকা সিলেটের বন্যার্তদের মধ্যে বিতরণের জন্য দিয়েছে। আমি গোপালগঞ্জসহ দেশের বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি যে আসুন, আমাদের যার যার অবস্থান অনুযায়ী বন্যার্তদের পাশে দাঁড়াই। ’

সুনামগঞ্জ ও সিলেটে বানভাসি মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলার আমান উল্লাহ কলেজের ২৫ শিক্ষার্থী। মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে অর্থ সংগ্রহ করে তারা সিলেটের দুর্গত মানুষের জন্য পাঠিয়েছে।

জানা গেছে, গত কয়েক দিনের বন্যায় দেশের সুমানগঞ্জ ও সিলেটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াতে ওই এলাকার এম জাহিদুর রহমান নামের এক ব্যক্তি তাঁদের সংগঠনের পক্ষ থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি পোস্ট দেন। ‘বন্যার্তদের সাহায্যে এগিয়ে আসুন সকলে’ শিরোনামের ওই পোস্ট দেখে ভাণ্ডারিয়ার আমান উল্লাহ কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ২৫ জনের একটি দল সাড়া দেয়। শিক্ষার্থীরা ‘আর্তমানবতার সেবায় ভয়াবহ বন্যার্তদের পাশে সাহায্যের হাত বাড়ান’ লেখা বাক্স নিয়ে রাস্তায় নামে এবং মানুষের দ্বারে দ্বারে যায়। দুই দিনে তারা ৬০ হাজার টাকা সংগ্রহ করে। ওই টাকা গতকাল বুধবার ইসলামী ব্যাংক ভাণ্ডারিয়া শাখার মাধ্যমে সুনামগঞ্জে জাহিদুরের সংগঠনের ব্যাংক হিসাবে  জমা দেয়।

শিক্ষার্থীদের টিম লিডার আব্দুল্লাহ আল কাফী জিহাদ বলে, ‘দুই দিনের সংগৃহীত ৬০ হাজার টাকা ইসলামী ব্যাংক ভাণ্ডারিয়া শাখার মাধ্যমে পাঠাতে পেরেছি। আমরা এ মানবিক কাজ অব্যাহত রাখতে চাই। ’

ইসলামী ব্যাংক ভাণ্ডারিয়া শাখার ব্যবস্থাপক মো. নুরে আলম জিয়া বলেন, ‘আর্তমানবতার সেবায় শিক্ষার্থীদের এমন মহতী উদ্যোগ প্রশংসনীয়। ’

[প্রতিবেদন তৈরিতে তথ্য দিয়েছেন গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি ও আঞ্চলিক প্রতিনিধি, পিরোজপুর। ]

 

 

 



সাতদিনের সেরা