kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

অমিত শাহর ঘোষণা

পশ্চিমবঙ্গে করোনা কমলেই কার্যকর করা হবে সিএএ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৭ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পশ্চিমবঙ্গে করোনা কমলেই কার্যকর করা হবে সিএএ

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছেন, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই পশ্চিমবঙ্গে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) কার্যকর করা হবে। সাংবিধানিকভাবেই সীমান্তকে দুর্ভেদ্য বানানো হবে।

গত বৃহস্পতিবার দুই দিনের সফরে পশ্চিমবঙ্গে আসেন অমিত শাহ। ভারতে ক্ষমতাসীন দল বিজেপির এই নেতা পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়ি ও উত্তর চব্বিশ পরগনার বনগাঁয় পৃথক অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

বিজ্ঞাপন

শিলিগুড়িতে এক জনসভায় অমিত শাহ আরো বলেন, ‘আমি এটা পরিষ্কার করে দিতে চাই যে তৃণমূল কংগ্রেস গুজব ছড়াচ্ছে যে সিএএ কার্যকর হবে না। আমি বলতে চাই যে কভিড মহামারি কমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমরা সিএএ কার্যকর করব। ’ ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে ভারতের কেন্দ্রীয় বিজেপি সরকার সিএএ পাস করে। সেটা কার্যকর হয় পরের বছর জানুয়ারিতে। এই আইনে আফগানিস্তান, বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে নির্যাতনের শিকার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। তবে মুসলিম সম্প্রদায়ের কেউ এই আইনে ভারতের নাগরিকত্ব পাওয়ার যোগ্য হবে না। দেশটিতে সংখ্যালঘু মুসলিমদের নিপীড়নের হাতিয়ার হিসেবে এই আইন তৈরি করার অভিযোগ ওঠে। তখন ভারতজুড়ে প্রতিবাদের ঢেউ ওঠে। নিন্দার মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর রাজ্যে সিএএ কার্যকর না করার ঘোষণা দেন।

উত্তর চব্বিশ পরগনায় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিএসএফের এক অনুষ্ঠানে অমিত শাহ বলেন, ‘বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী আমাকে অনুপ্রবেশের সমস্যা নিয়ে বলেছেন। আমি বলছি, স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতা ছাড়া অনুপ্রবেশ, চোরাচালান ইত্যাদি আটকানো কঠিন। ’ তিনি বলেন, ‘আমরা সাংবিধানিক পথেই আমাদের সীমান্ত দুর্ভেদ্য বানাব। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সীমান্ত সুরক্ষাকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়েছেন। ’

এদিকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে ‘আগুন নিয়ে খেলবেন না’ বলে সতর্ক করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল নেত্রী জানিয়ে দিয়েছেন, বাংলা নিয়ে তাঁর ভাবার দরকার নেই। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে নতুন তৃণমূল ভবনে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, আমি আপনাকে সম্মান করি। আপনিও নাগরিক, আমিও নাগরিক। সেই হিসেবে সম্মান করি। কিন্তু আগুন নিয়ে খেলবেন না। ’ তিনি আরো বলেন, ‘বাংলায় বিএসএফ রাজ্য চালাবে না। বিএসএফের কাজ সীমান্তে গরু পাচার আটকানো, অনুপ্রবেশ রুখে দেওয়ার, সেটা করুক। ’ সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা ও দ্য ওয়াল

 



সাতদিনের সেরা