kalerkantho

মঙ্গলবার ।  ২৪ মে ২০২২ । ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২২ শাওয়াল ১৪৪৩  

সবিশেষ

দূষণে রেহাই নেই ভূগর্ভেও

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৭ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দূষণে রেহাই নেই ভূগর্ভেও

জলবায়ু পরিবর্তন শুধু বিশ্ববাসীর বর্তমানকে নয়, অতীত রেকর্ডকেও ক্ষতিগ্রস্ত করছে। ফলে অতীত নিয়ে যাঁরা গবেষণায় ব্যস্ত, তাঁদের আশঙ্কা, গুরুত্বপূর্ণ প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলো নষ্ট হয়ে গেলে তাঁরা হয়তো অতীতের তথ্য ঠিকঠাক পুনরুদ্ধার করতে পারবেন না।

বিবিসি জানায়, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঝুঁকিতে পড়ে গেছে যুক্তরাজ্যের প্রায় ২২ হাজার ৫০০ প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান। ঝুঁকির কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বলা হয়, যুক্তরাজ্যের ভূভাগের প্রায় ১০ শতাংশ জলাভূমি।

বিজ্ঞাপন

ওই ধরনের ভূভাগে সংরক্ষিত প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলো এত দিন ঠিকঠাকই ছিল। কারণ জলাভূমির পরিবেশগত গঠনের কারণে সেখানে অক্সিজেন প্রবেশ করতে পারত না।

জলবায়ু পাল্টে যাওয়ার কারণে ওই সব জলাভূমি আর্দ্রতা হারাচ্ছে। মাটি এতটাই শুকিয়ে যাচ্ছে যে ওই সব জায়গায় অক্সিজেনের প্রবেশ ঘটছে। অক্সিজেন প্রবেশ করার কারণে নানা ধরনের রাসায়নিক ক্রিয়া-বিক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। এমন অনেক প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন আছে, যেগুলো অক্সিজেন সংশ্লিষ্ট ক্রিয়া-বিক্রিয়ায় পচে যেতে পারে। ঠিক সেটাই ঘটছে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে।

ঝুঁকিতে থাকা নিদর্শনগুলোর মধ্যে রয়েছে মুষ্টিযুদ্ধ খেলায় ব্যবহৃত পৃথিবীর প্রাচীনতম দস্তানা। আরো রয়েছে নারীর হাতের লেখা প্রাচীনতম এক চিঠি।

এ ধরনের বহু নিদর্শনের পচনপ্রক্রিয়া এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে। সম্ভাব্য সব প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন মাটি খুঁড়ে বের করতে বিপুল অঙ্কের অর্থ প্রয়োজন, প্রয়োজন সময়ও। সব প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন খুঁজে বের করতে কয়েক দশক লেগে যেতে পারে। তত দিনে হয়তো সেসব গুরুত্বপূর্ণ নিদর্শন বিকৃত হয়ে যাবে।

সূত্র : বিবিসি



সাতদিনের সেরা