kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ১৯ মে ২০২২ । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩  

ময়মনসিংহে ৬৫০ শীতার্তকে কম্বল উপহার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ময়মনসিংহে ৬৫০ শীতার্তকে কম্বল উপহার

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের ডাকবাংলোয় গতকাল বসুন্ধরা গ্রুপের দেওয়া কম্বল নিতে মায়েদের সঙ্গে আসে শিশুরাও। ছবি : কালের কণ্ঠ

মায়ের কোলে চড়ে শীতের সকালে অন্যদের সঙ্গে কম্বল নিতে এসেছে তিন বছর বয়সী আরিফ। অনেকক্ষণ অপেক্ষায় থেকে সাদা রঙের একটি কম্বল পেলেও কান্না শুরু করে। পাশের একজনের কাছে একটি লাল রঙের কম্বল দেখে বায়না ধরে, তার এটা চাই। পরে তাকে একটি লাল কম্বল দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

কম্বল পেয়ে মায়ের কাছে তার আবদার, ‘আমারে দেউ, আমি গায়ে দেয়াম, আর শীত লাগতো না’—গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলায় বসুন্ধরা গ্রুপের কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে এ চিত্র দেখা যায়।

বসুন্ধরা গ্রুপের সহায়তায় ও কালের কণ্ঠ শুভসংঘের আয়োজনে গতকাল বুধবার ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ, ত্রিশাল ও ফুলপুর উপজেলায় ছয় শতাধিক দরিদ্র মানুষকে কম্বল দেওয়া হয়। এ ছাড়া ঈশ্বগঞ্জ জেলা পরিষদ ডাকবাংলো চত্বরে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাম্মৎ হাফিজা জেসমিন। আরো উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার মেয়র আব্দুছ ছাত্তার কমান্ডার, ওসি আব্দুল কাদের মিয়া ও প্রেস ক্লাব সভাপতি নীলকণ্ঠ আইস মজুমদার, স্থানীয় সাংবাদিক ও কালের কণ্ঠ শুভসংঘের সদস্যরা।

১০ কিলোমিটার দূরের পথ পেরিয়ে কম্বল নিতে আসা প্রতিবন্ধী মোস্তাকিম, শরীফ ও মোস্তফা জানায়, তারা কম্বল পেয়ে খুব খুশি।

ইউএনও হাফিজা জেসমিন বলেন, ‘বসুন্ধরার এই মানবিক কর্ম যুগ যুগ ধরে চলুক এই কামনা করি। প্রশাসনসহ সাধারণ জনগণ আছে তাদের সঙ্গে। ’

গতকাল দুপুরে ত্রিশালের কোনাবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে দুই শতাধিক শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম জুয়েল সরকার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ত্রিশাল প্রেস ক্লাবের সভাপতি রফিকুল ইসলাম শামীম, সাধারণ

সম্পাদক এইচ এম জোবায়ের হোসেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সেলিম, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফুয়াদ হাছান নিউটন প্রমুখ।

বিকেলে ত্রিশালের চকপাঁচপাড়া রহমানিয়া মাদরাসা মাঠে শতাধিক শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ত্রিশাল আসনের সংসদ সদস্য হাফেজ রুহুল আমিন মাদানী। তিনি বলেন, ‘করোনা মহামারির সময় বসুন্ধরা গ্রুপ অসহায়দের মাঝে ছুটে গেছে, রোজা ও ঈদ উপলক্ষে তারা অসহায়দের কাছে ছুটে গেছে। এবার শীতে যেভাবে শীতার্তদের পাশে তারা দাঁড়িয়েছে তা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। দেশের সব প্রতিষ্ঠানের এভাবে আর্তমানবতার সেবায় এগিয়ে আসা উচিত। ’

ফুলপুর উপজেলায় গতকাল আড়াই শ অসহায় শীতার্ত মানুষকে কম্বল দেওয়া হয়। সকালে রূপসী ইউনিয়নের ঘোমগাঁও রোহানী মঞ্জিলে ৫০টি কম্বল বিতরণ করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ফুলপুর থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন। বিকেলে ফুলপুর সরকারি মহিলা ডিগ্রি কলেজ মাঠে দুই শ কম্বল বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ফুলপুর উপজেলা শুভসংঘের প্রধান উপদেষ্টা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শীতেষ চন্দ্র সরকার। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউল করিম রাসেল, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা কামরুল হাসান (কামু), ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন, ফুলপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবীর মুকুল প্রমুখ।

[প্রতিবেদন তৈরিতে তথ্য দিয়েছেন আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিং এবং ত্রিশাল (ময়মনসিংহ), ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি]



সাতদিনের সেরা