kalerkantho

শনিবার ।  ২১ মে ২০২২ । ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩  

ভোজ্য তেলের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাবে সায় নেই মন্ত্রণালয়ের

১৫ দিন পর আবার বৈঠক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভোজ্য তেলের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাবে সায় নেই মন্ত্রণালয়ের

ভোজ্য তেলের দাম বাড়াতে ব্যবসায়ীদের দেওয়া প্রস্তাবে সায় দেয়নি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। দাম বাড়ানোর যৌক্তিকতা আরো যাচাই-বাছাই করতে মন্ত্রণালয় আরো ১৫ দিনের সময় নিয়েছে। পরে আবার বৈঠক করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

গতকাল বুধবার ভোজ্য তেল ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

বিজ্ঞাপন

মন্ত্রী বলেন, আগামী ১৫ দিন ভোজ্য তেলের দাম বাড়ছে না। বৈঠকে দাম কমাতে ব্যবসায়ীদের আহ্বান জানানো হয়েছে। অভ্যন্তরীণ ও বৈশ্বিক বাজার বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব তপন কান্তি ঘোষ, অতিরিক্ত সচিব এ এইচ এম সফিকুজ্জামান, সিটি গ্রুপের পরিচালক বিশ্বজিৎ সাহা, টিকে গ্রুপের পরিচালক সফিউল, অর্থ ও অপারেশন আতহার তসলিম, মেঘনা গ্রুপের জ্যেষ্ঠ সহকারী মহাব্যবস্থাপক মো. তসলিম শাহরিয়ারসহ অন্যান্য কম্পানির প্রতিনিধিরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

চলতি মাসের শুরুতে পরিশোধনকারী কম্পানিগুলো আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্য তেলের দাম বেড়েছে দাবি করে দেশের বাজারে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করে। তখন বাণিজ্য মন্ত্রণালয় দাম না বাড়িয়ে কারখানা পরিদর্শনের সিদ্ধান্ত নেয়।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ব্যবসায়ীদের বলেছি, মন্ত্রণালয় আরো যাচাই-বাছাই করুক। ১৫ দিন পর আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি আমরা আবার ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বসব। ওই বৈঠকেই ভোজ্য তেলের হালনাগাদ দাম ঠিক করা হবে। তখন প্রয়োজনে বাড়ানো-কমানো হবে। ’

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ভোজ্য তেল আমদানিকারকরা বারবার বলছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বাড়ছে। যে ক্যালকুলেশনে এটি ফিক্সআপ করা হয়, সেখানে নতুন করে ভাবার সময় এসেছে। সামনে পবিত্র রমজান, ঈদুল ফিতর। সে জন্য তাঁদের স্বাভাবিকভাবে এলসি খোলার অনুরোধ করেছি। এরপর বসে একটা সিদ্ধান্ত নেব।

তেলের দাম কমার সম্ভাবনা আছে কি না, জানতে চাইলে টিপু মুনশি বলেন, এই মুহূর্তে বলা যাবে না। বিশেষজ্ঞরা বিষয়টি দেখেশুনে সিদ্ধান্ত নেবেন। রমজানে দামের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘পৃথিবীজুড়ে এসব ধর্মীয় অনুষ্ঠানের সময় মূল্যহ্রাস চলে। বড়দিনের সময় ৩০-৩৩ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দেওয়া হয়। আমাদের এখানে উল্টো, ঈদ এলেই দাম বাড়ে। ’

টিসিবির অপারেশন প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘টিসিবি রমজান মাসে ৪০০ ট্রাকে পণ্য বিক্রি করে, এবার ৭০০-৮০০ ট্রাকে বিক্রি করা হবে। বিশ্ববাজারে তেলের দাম একই রকম আছে। বিভিন্ন ফ্যাক্টর আছে, যদি এই ১৫ দিনে দাম ৫০ ডলার কমে, সেভাবেই আমরা সিদ্ধান্ত নেব। ’

 



সাতদিনের সেরা