kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ২৬ মে ২০২২ । ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৪ শাওয়াল ১৪৪

পাঁচ জেলায় কম্বল বিতরণ

‘এই কম্বলটা আমার শীতের বন্ধু’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘এই কম্বলটা আমার শীতের বন্ধু’

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার গজনী এলাকায় গতকাল বসুন্ধরা গ্রুপের উদ্যোগে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মানুষের মধ্যে কম্বল বিতরণ করা হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

আকাশ, বাবু, রাতুল, জান্নাতি, সিনথিয়া—এরা সবাই কুষ্টিয়া বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। এই শীতে খুব কষ্ট পাচ্ছিল তারা। বিষয়টি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে জানতে পেরে কালের কণ্ঠ শুভসংঘের সদস্যরা গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে কম্বল নিয়ে হাজির হন সুবিধাবঞ্চিত ওই শিক্ষার্থীদের কাছে। ঠিকমতো কথা বলতে পারে না, ভালো মতো দাঁড়াতে পারে না— ওই শিক্ষার্থীরা কম্বল দেখে আনন্দে নাচতে শুরু করল।

বিজ্ঞাপন

বসুন্ধরা গ্রুপের সহায়তায় ও কালের কণ্ঠ শুভসংঘের আয়োজনে গতকাল কুষ্টিয়া বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ে ১০০ কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। এ ছাড়া এদিন শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী, নকলা ও নালিতাবাড়ী উপজেলায় সাড়ে ৬০০ কম্বল, নাটোরে সাড়ে ৫০০,  ময়মনসিংহের গফরগাঁও ও নওগাঁর ধামইরহাটে দরিদ্র শীতার্ত মানুষকে কম্বল দেওয়া হয়।

কুষ্টিয়ার বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ে কম্বল বিতরণ কার্যক্রমে অংশ নেন কুষ্টিয়া জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার, টিআইবি পরিচালিত সচেতন নাগরিক কমিটির সভাপতি ও শুভসংঘ কুষ্টিয়ার সভাপতি রফিকুল আলম টুকু, ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা আসমা আখতার বানু প্রমুখ। শুধু আকাশ, বাবু, রাতুল, জান্নাতি বা সিনথিয়া নয়, কম্বল পেয়ে খুশি ওই সব শিক্ষার্থী ও শিক্ষক-শিক্ষিকারা। কম্বল হাতে পেয়ে আনন্দে উদ্বেলিত শিক্ষার্থী মৃদুলা বলে, ‘এই কম্বলটা আমার শীতের বন্ধু। ’ এ নিয়ে কুষ্টিয়ায় গত চার দিনে এক হাজার ৭০০ কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। জেলায় আরো ৪০০ কম্বল বিতরণ করা হবে।

শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী, নকলা ও নালিতাবাড়ী উপজেলায় গতকাল সাড়ে ৬০০ কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। বিকেলে ঝিনাইগাতীর পাহাড়ি গজনী এলাকায় বসবাসকারী গারো, কোচ, হাজং ও বর্মণ নৃতাত্তিক জনগোষ্ঠীর আড়াই শ মানুষকে কম্বল দেওয়া হয়।

এর আগে সকালে নকলায় নকলা সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে এবং দুপুরে নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্সে কম্বল বিতরণ করা হয়।

আজ বুধবার শেরপুর সদরে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সাড়ে ৩০০ শীতার্ত মানুষকে কম্বল দেওয়া হবে।

গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় নাটোর শংকর গোবিন্দ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দরিদ্র, অসহায় সাড়ে ৫০০ মানুষকে কম্বল দেওয়া হয়।

গতকালের অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নাটোরে বসুন্ধরার এক হাজার ৩০০ কম্বল বিতরণের কার্যক্রম শেষ হলো।

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে পৌর শহরের জেলা পরিষদ ডাকবাংলো মাঠে শতাধিক অসহায় শীতার্তকে কম্বল দেওয়া হয়। এ ছাড়া গত এক সপ্তাহে নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার বিভিন্ন নূরাণী ও হাফেজিয়া মাদরাসার এতিম শিক্ষার্থী, ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠী ও হতদরিদ্র ১৫০ জনকে কম্বল বিতরণ করা হয়।

[প্রতিবেদন তৈরিতে তথ্য দিয়েছেন নিজস্ব প্রতিবেদক কুষ্টিয়া এবং শেরপুর, নাটোর, গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) ও ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি। ]

 



সাতদিনের সেরা